অক্টোবর থেকে বিকল্প ব্যবস্থা চালু করে সরানো হবে তারের জঞ্জাল

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: পহেলা অক্টোবর থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণ শুরু হবে ঢাকার উত্তরে। মেয়র আতিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, নির্দিষ্ট সড়কভিত্তিক বিকল্প ব্যবস্থা চালু করে তবেই সরানো হবে তারের জঞ্জাল। উত্তর সিটিতে ক্যাবল সংযোগ নিরবচ্ছিন্ন রাখার নানা উদ্যোগ থাকলেও দক্ষিণ সিটিতে তা অনুপস্থিত। সমন্বিত ব্যবস্থার অভাবে তার অপসারণে গ্রাহক ভোগান্তি হচ্ছে বলে অভিযোগ সেবাদাতা সংগঠনগুলোর।

ঝুলন্ত তারের জঞ্জালমুক্ত হবে রাজধানী। দক্ষিণ সিটিতে আগে থেকেই ক্যাবল অপসারণ চললেও উত্তর সিটিতে শুরু হবে অক্টোবর থেকে। তাই রাজধানীর উত্তরায় নিজেরাই উদ্যোগী হয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটি থেকে অপ্রয়োজনীয় তার সরাচ্ছেন সেবাদাতারা।

উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, সংযোগের বিকল্প ব্যবস্থা করেই প্রধান সড়ক থেকে তারের জঞ্জাল সরাবেন তিনি। চলছে মাটির নিচ দিয়ে ক্যাবল নেয়ার পাইলট প্রকল্পও।

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন থেকে এখনও কোন অভিযান পরিচালনা হচ্ছে না। আমরা এক তারিখ থেকে এ অভিযান শুরু করবো।আমরা পাকিস্থান অ্যাাম্বাসির সামনে থেকে শুরু করে শুটিং ক্লাব পর্যন্ত রোডটা সবার আগে ক্যাবল মুক্ত করতে চাচ্ছি।

উত্তর সিটির মতো দক্ষিণ সিটিতে ক্যাবল ব্যবস্থাপনায় সমন্বিত উদ্যোগের অভাব দেখছে- আইএসপিএবি। আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, পাকিস্তান অ্যাাম্বাসি থেকে শুটিং কমপ্লেয পর্যন্ত যে ক্যাবলটা কাটা হচ্ছে এতে কেউই ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন হবে না। এটার কারণ হচ্ছে তারা সমন্বয় করে কাজ করছে। দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ক্যাবল কাটবেন উনি কালকে কোথায় কাটবেন আজকে কোথায় কাটবেন কিছুই জানি না।

দক্ষিণ সিটির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মুনিরুজ্জামান বলেন, তারের জঞ্জাল সরাতে অভিযান চলমান থাকবে। তিনি বলেন, এটা দীর্ঘদিনের একটা সমস্যা, তাই সমাধানেও কিছুটা সময় লাগবে। আমাদের নিয়মিত অভিযান চলছে।

তার অপসারণ শুরু হলে নিরবচ্ছিন্ন সেবায় কিছু ভোগান্তি হতে পারে স্বীকার করলেন উত্তরের মেয়র।

শহরজুড়ে এলডিপি পয়েন্ট বাড়লে ঝুলন্ত তার কমবে- বলছে আইএসপিএবি। আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, দুই বাড়ির মাঝখানে একটি করে যদি এলডিপি থাকে তাহলে আমরা আইএসপিএবি থেকে নিশ্চিত করতে পারি যে কোন ঝুলন্ত তার থাকবে না। সিটি কর্পোরেশন যদি আমাদের একশ মিটার করে ক্যাবল বের করার অপশন করে দেয় ঢাকা সিটিতে কোন ঝুলন্ত ক্যাবল থাকবে না।

এখনো পর্যন্ত ১০কোটি টাকার ক্যাবল অপসারণ হয়েছে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *