অগ্নিদগ্ধ সিএনজি চালকের পাশে ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এমপি

সারাবাংলা

ফয়জুল ইসলাম ফয়সাল, মুরাদনগর থেকে
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জে গ্যাস লাইন ফেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৫ জন দগ্ধ হয়েছিলেন। এদের মধ্যে সিএনজি চালক ছবির উদ্দিনের অবস্থা ছিল আশংকাজনক। তাকে দেখতে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ণ ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ছুটে যান এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এমপি।
ওই হাসপাতালে এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন তাকে দেখতে গেলে সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে  সোমবার তা ছড়িয়ে পড়ে। দলমত নির্বিশেষে সবাই এ কাজের প্রসংশা করছেন। ছবির উদ্দিনকে দেখতে গিয়ে এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন কর্তব্যরত চিকিৎসকদের সঙ্গে তার শারীরিক পরিস্থিতির খোঁজ নেন। দগ্ধ ছবির উদ্দিনের চিকিৎসার ব্যয়ভারও গ্রহণ করেন তিনি। তা ছাড়া অগ্নিদগ্ধ সিএনজি চালকের বাড়িতে এমপির পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রীও পৌঁছে দেওয়া হয়। এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের এমন মানবিক প্রদক্ষেপে অসহায় পরিবারটি আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।
ওই সময় উপস্থিত ছিলেন মুরাদনগর উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোহাম্মদ হাসান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাজহারুল ইসলাম, মুরাদনগর সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইসমাইল হোসেন ও দিলালপুর গ্রামের ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন।
অগ্নিদগ্ধ ছবির হোসেনের পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা রুক্কু মিয়া সজল চোখে বলেন, এমপি সাহেবের পক্ষ থেকে আমরা সার্বিক সহযোগিতা পেয়েছি। তা ছাড়া তিনি স্ব-শরীরে গিয়ে আমার ছেলের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন। এমন ঘটনা আমার পরিবার ও প্রতিবেশীদের মধ্যে নজির স্থাপন করেছে। গরিব বান্ধব এমন জনপ্রতিনিধি পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। উল্লেখ্য, গত ৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের অদূরে আচমকা গ্যাস পাইপ ফেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট দেড় ঘণ্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় বাখরনগর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা রুক্কু মিয়ার ছেলে সিএনজি অটোরিকসা চালক ছবির উদ্দিনসহ পাঁচজন অগ্নিদগ্ধ হয়। তখন তার সিএনজি অটোরিকসাটিও পুড়ে ছাই হয়ে যায়। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে সেরে গেলেও ছবির উদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ণ ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *