অভিনেত্রী মৌসুমীর জন্মদিন আজ

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক : বাংলা চলচ্চিত্র ইতিহাসের অন্যতম সফল নায়িকা আরিফা পারভীন জাহান মৌসুমী। এই অভিনেত্রীর আজ জন্মদিন। ৪৮ পেরিয়ে ৪৯ বছরে পা দিয়েছেন মৌসুমী। ১৯৭৩ সালের ৩ নভেম্বর খুলনায় জন্ম। বাবা নাজমুজ্জামান মনি এবং মা শামীমা আখতার জামান দম্পতির বড় মেয়ে তিনি।

একাধিক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রীর ছোট বোন ইরিন জামানও একসময় চলচ্চিত্রের মানুষ ছিলেন। তবে বহু বছর ধরে তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। দাম্পত্য জীবনে মৌসুমী চিত্রনায়ক ওমর সানীর স্ত্রী। ছেলে ফারদিন এহসান স্বাধীন এবং মেয়ে আইজাকে নিয়ে তাদের দুই যুগেরও বেশি সময়ের সংসার।

কিন্তু স্ত্রীর জন্মদিনে মন খারাপ নায়ক ওমর সানীর। কারণ বিশেষ এ দিনটিতে মৌসুমী দেশে নেই। একমাত্র মেয়ে ফাইজাকে নিয়ে গত ১৪ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন নায়িকা। ফাইজা এই ধনি দেশটির নাগরিক। গত ২৯ অক্টোবর তার ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে। তাই যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে তার আইডি কার্ড ও অন্যান্য কাগজপত্রের জন্য আবেদন করতেই যুক্তরাষ্ট্রে মা-মেয়ে।

এছাড়া মৌসুমীর ইচ্ছা, তার মেয়ে ফাইজা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করুক। সে সময় ওমন সানী গণমাধ্যমকে এসব খবর জানিয়েছিলেন। এও বলেছিলেন, মেয়েকে নিয়ে তিন সপ্তাহ যুক্তরাষ্ট্রে থাকবেন মৌসুমী। মেয়ের কাজের পাশাপাশি সময় কাটাবেন মা এবং বোন ইরিন জামানের সঙ্গে। তাই জন্মদিনটাও সেখানেই কাটাবেন।

ওমর সানী জানিয়েছিলেন, স্ত্রী মৌসুমী ও মেয়ে ফাইজার সঙ্গে তারও যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভিসা জটিলতায় যেতে পারেননি। ফলে আজ ৩ নভেম্বর মৌসুমীর জন্মদিনেও তার পাশে থাকা হলো না। যদিও দেশে থাকলে স্ত্রীর জন্মদিন বেশ আয়োজন করেই পালন করেন নায়ক ওমর সানী। এছাড়া মৌসুমীর ভক্তদের পক্ষ থেকেও থাকে বিশেষ আয়োজন।

যেভাবে চলচ্চিত্রে এসেছিলেন মৌসুমী ছোটবেলা থেকেই অভিনেত্রী এবং গায়িকা হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন মৌসুমী। এরপর তিনি ‘আনন্দ বিচিত্রা ফটো বিউটি কনটেস্ট’ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হন। যার উপর ভিত্তি করে ১৯৯০ সালে টেলিভিশনের বাণিজ্যিকধারার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সুযোগ পান।

১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে প্রবেশ করেন মিষ্টি চেহারার নায়িকা মৌসুমী। ওই ছবিতে তার নায়ক ছিলেন প্রয়াত সুপারস্টার সালমান শাহ। ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছিল তাদের দুজনেরই অভিষেক ছবি। প্রথম ছবিতেই পরিচালক-প্রযোজক ও দর্শকের নজর কাড়েন মৌসুমী, সঙ্গে সালমান শাহও।

এরপর শুধু ছুটেই চলেছেন। কখনোই আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। অভিনয় জীবনে দুর্দিনও খুব একটা আসেনি। ক্যারিয়ারে মৌসুমী অভিনয় করেছেন ৮০টিরও বেশি ছবিতে। যার অধিকাংশই ব্যবসাসফল। এই নায়িকার সঙ্গে মান্না ও ইলিয়াস কাঞ্চনের জুটি ছিল সুপারহিট। এছাড়া স্বামী ওমর সানীর সঙ্গেও বেশ কয়েকটি ভালো ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি।

মৌসুমী অভিনীত ছবিগুলোর মধ্যে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’, ‘দোলা’, ‘মৌসুমী’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘বিদ্রোহী বধূ’, ‘আÍত্যাগ’, ‘বিশ্ব প্রেমিক’, ‘গরীবের রানী’, ‘লুটতরাজ’, ‘লাট সাহেবের মেয়ে’, ‘আম্মাজান’, ‘কষ্ট’, ‘খায়রুন সুন্দরী’, ‘মেঘলা আকাশ, ‘দেবদাস’ এবং ‘তারকাঁটা’ উল্লেখযোগ্য।

২৮ বছরের ক্যারিয়ারে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন মৌসুমী। সেই তিনটি সিনেমা হলো, মেঘলা আকাশ (২০০১), দেবদাস (২০১৩), তারকাঁটা (২০১৪)। মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার জিতেছেন তিনবার।

এছাড়া ছয়বার পেয়েছেন বাচসাস পুরস্কার। অভিনয়ের পাশাপাশি কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জনমত ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইউনিসেফের হযে কাজ করেন মৌসুমী।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *