আগাম জাতের ধান কাটা-মাড়াইয়ে ব্যস্ত কৃষক

সারাবাংলা

মধুখালী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি 
চলতি মৌসুমে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলায় আগাম জাতের ধান চাষ করে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। এবার ধানের ফলনও ভালো হয়েছে। উপজেলার কোরকদী ইউনিয়নের কলাইকান্দা এলাকার পথ দিয়ে যেতে চোখে পড়ে বিস্তীর্ণ আমন খেত। বেশিরভাগ খেতের ধান পাকতে শুরু করেছে। ক্ষেত থেকে সেসব ধান কেটে মাড়াই করে ঘরে তুলতে ব্যস্ত কৃষকেরা।
কৃষকরা জানান, এ বছর আমন ধানের উৎপাদন হচ্ছে একর প্রতি (১০০ শতক) ৭০-৮০ মণের উপরে। খরচ হয়েছে ৩০ থেকে ৩২ হাজার টাকা। বাজারে দাম ভালো হলেই আমরা লাভবান।
আমনের ফসল আসতে যেখানে ১-২ মাস সময় লাগবে, সেখানে এই মুহূর্তে আমন ধান পেকেছে। বিনার উদ্ভাবিত এ জাতগুলোর অপার সম্ভাবনা রয়েছে। হাইব্রিড ছাড়াও উচ্চ ফলনশীল বিনা-১৭, বিনা-২০, ব্রি-৭৫, ব্রি-৮৭ জাতের ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। আগামী ১৫-২০ দিনের মধ্যে বেশিরভাগ ধান কাটা শেষ হয়ে যাবে।
উপজেলার উজানদিয়া গ্রামের কৃষক মোঃ হাচান বলেন দুই একর জমিতে হাইব্রিড ধানের চাষ করেছিলেন। এখন জমির সেই ধান কাটতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। পূর্ব আড়পাড়া গ্রামের কৃষক মোঃ আকরাম বলেন, এবার ফলনের পাশাপাশি ধানের দামও ভালো। আর এতেই কৃষকেরা খুশি।
কৃষি কর্মকর্তা আলভীর রহমান বলেন, এ বছর উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ৮ হাজার ৪০০ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ করা হয়েছে। ফলন হয়েছে ৮ হাজার ৪৪০ হেক্টর যা ৪০ হেক্টর পরিমাণ বেশি। আমনের আগাম জাতগুলোর ধান আগে পেকে যায় বিধায় কৃষকেরা এখন ঘরে তুলতে পারছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *