আজ আত্মসমর্পণ করবেন চিকিৎসক দম্পতিসহ ৯ জঙ্গি

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন-র‌্যাবের কাছে আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছে নয় জঙ্গি সদস্য। আজ বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করবে।

র‌্যাব জানায়, আত্মসমর্পণকৃত নয় জঙ্গিকে ‘ডি-রেডিক্যালাইজেশন’ অ্যান্ড ‘রিহ্যাবিলিটেশন’ এর মাধ্যমে সন্ত্রাস ও চরমপন্থার জীবন পরিত্যাগ করে একদল তরুণ-তরুণী শান্তি ও আলোর পথে তথা সমাজের মূলধারায় নিজেদের সমর্পণ করবে। তাদের মধ্যে রয়েছে চিকিৎসক দম্পতি, প্রকৌশলী, শিক্ষার্থীসহ নানা পেশার মানুষ। ডি-রেডিক্যালাইজেশন জঙ্গি গোষ্ঠী মধ্যে- জেএমবি, নব্য জেএমবি, আনসার আল ইসলাম ও আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যরা রয়েছে।

এসময় উপস্থিত থাকবেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ, র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) অতিরিক্ত আইজিপি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, আমরা জঙ্গিদের ধ্বংস করতে পারবো। সামর্থ্য নষ্ট করতে পারবো। কিন্তু তার আদর্শ তো ব্রেনে। সেটা কী করবো? কারো ভেতর যদি ভুল কোনো আইডোলজি থাকে সেটা শুধু যদি বন্দুক দিয়ে মোকাবিলা করা যায় না। এতে আইডোলজি কিন্তু মরবে না। শুধু বন্দুক, অপারেশন এগুলো কাউন্টার টেররিজমের একটা অংশ। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া নয়। সম্প্রতি দুই ধরনের উগ্রপন্থী লক্ষ করা যাচ্ছে। কিছু উগ্রপন্থী উগ্র মতবাদে বিশ্বাসী হলেও তারা কোনো সন্ত্রাসী কাজে অংশ নিচ্ছে না। আবার কিছু উগ্রপন্থী সন্ত্রাসী কাজে অংশ নিচ্ছে। উগ্রবাদীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে হলে ডি-রেডিক্যালাইজেশনের বিকল্প নেই। শুধু আইনের আওতায় এনেই জঙ্গিবাদ নির্মূল করা সম্ভব নয়। কারণ, জেল খেটে বের হওয়ার পরও তারা উগ্রপন্থায় জড়িত হতে পারে। জেলের ভেতরও উগ্রপন্থা ছড়িয়ে দিতে পারে। তাই কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে জঙ্গি বা উগ্রবাদীদের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে। নতুন এই উদ্যোগের মাধ্যমে র‌্যাব তাদের (জঙ্গিদের) মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে পারবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *