আজ করোনায় মৃত্যুর এক বছর

আন্তর্জাতিক

অনলাইন ডেস্ক: আজ ১১ জানুয়ারি। করোনাভাইরাস মহামারির ইতিহাসে এই দিনটি মাইলফলক হিসেবে থাকবে। গত বছরের এই দিনে করোনায় প্রথম এক ব্যক্তির মৃত্যুর কথা ঘোষণা করেছিল চীন। এক বছর হয়ে গেলেও এখনও করোনা ভাইরাসের উৎস কী, তা সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট উত্তর মেলেনি।

এই দিনেই চীন জানিয়েছিল, ৬১ বছরের এক ব্যক্তির করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে। এই ব্যক্তি চীনের উহানের বাজারের নিয়মিত যাতায়াত করতেন। এর পরেই দ্রুত গতিতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে থাকে। সংক্রমণ এমন পর্যায় পৌঁছায় যে বিশ্বব্যাপী মহামারিতে রূপ নেয়।

এই মাংসের বাজারই ভাইরাসের উৎস বলে শোনা গিয়েছিল এক সময়ে। পরে অবশ্য অন্য তত্ত্ব উঠে আসে। চীন ক্রমাগত দাবি করে, চীনে প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়লেও, দেশটি নভেল করোনাভাইরাসের উৎস নয়। তাহলে উৎস কোথায়! এ প্রশ্নের উত্তর অবশ্য এখনও অজানা। আদৌ কোনোদিন জানা যাবে কি না, সে বিষয়ে সন্দিহান বিশেষজ্ঞেরা।

এরই মধ্যে করোনা মহামারিতে মৃত্যু হয়েছে প্রায় সাড়ে ১৯ লাখ মানুষের। আক্রান্ত হয়েছেন ৯ কোটির বেশি মানুষ। প্রথম মৃত্যুর এক বছরের মধ্যে বাজারে এসেছে বেশ কয়েকটি টিকা। বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে টিকাকরণ।

করোনার উৎস খুঁজতে উহানে বিশেষজ্ঞ দল পাঠানোর জন্য চীনের কাছে আবেদন জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। কিন্তু তাদের তদন্তকারী দলকে এখনো প্রবেশের অনুমতি দেয়নি চীন। এ নিয়ে বিতর্কের পর চীন জানিয়েছে তারা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দলকে চীনে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত।

চীনের ন্যাশনাল হেল্‌থ কমিশন এর উপমন্ত্রী জেং ইক্সিন বলেছেন, ‘কবে হু-কে চিনে প্রবেশে অনুমতি দেওয়া হবে, তার নির্দিষ্ট দিনক্ষণ স্থির করা হচ্ছে। আমরা তৈরি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞ দল তাদের সময়সূচি জানালে আমরাও তাদের সঙ্গে তদন্ত করতে উহানে যাব।’

শুধু ভাইরাসের উৎস নয়, ভাইরাসের চরিত্র নিয়েও সন্দিহান বিশেষজ্ঞেরা। মূল প্রশ্ন, ভাইরাসটি কী ভাবে প্রাণীর শরীর থেকে মানুষের দেহে ছড়াল? গোড়ায় দাবি ওঠে, ২০১৯ সালের শেষে উহানের মাংসের বাজার থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে। বিভিন্ন বন্যপ্রাণীর মাংস বিক্রি হয় ওই বাজারে।

খাবার মারফতই ভাইরাস-সংক্রমণ ঘটে মানবদেহে। বাদুড়ের মাংস নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন বিশেষজ্ঞেরা। কিন্তু পরে ষড়যন্ত্রের তত্ত্বও উঠে আসে। মার্কিন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন, উহানের গবেষণাগার থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *