আজ থেকে বিদেশফেরত যাত্রীদের করোনা সনদ বাধ্যতামূলক

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারা বিশ্বে প্রতিদিন বাড়ছে করোনাভাইরাসের প্রকোপ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় বিদেশফেরত যাত্রীদের কভিড-১৯ নেগেটিভ সনদ বাধ্যতামূলক করে নির্দেশনা জারি করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

আজ শনিবার (০৫ ডিসেম্বর) থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এর ফলে কভিড-১৯ ‘নেগেটিভ’ সনদ ছাড়া কোন বিমানযাত্রী আর বাংলাদেশে ঢুকতে পারবেন না।

বেবিচকের সদস্য গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীরের সই করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশে আসতে হলে সব যাত্রীকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা করতে হবে।

এতে ফলাফল নেগেটিভ আসলেই কেবল ওই যাত্রীরা বাংলাদেশে আসতে পারবেন।

করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট বিমানবন্দরে দেখাতে হবে। একইসঙ্গে বিমানবন্দরেও যাত্রীর করোনার লক্ষণ-উপসর্গ আছে কি না পরীক্ষা করা হবে। কোনো যাত্রীর উপসর্গ পাওয়া গেলে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকলেও তাকে সরাসরি নির্ধারিত হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

এরপর করোনা পরীক্ষা, চিকিৎসার ধারাবাহিকতায় পাঠানো হবে আইসোলেশন সেন্টারে। এছাড়া কোনো যাত্রীর মধ্যে উপসর্গ না পাওয়া গেলেও তাকে বিমানবন্দর থেকে নিজ বাড়িতে গিয়ে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বেবিচকের নির্দেশনায় আরো জানানো হয়, বিএমইটি কার্ড আছে এমন বাংলাদেশি শ্রমিকরা যে দেশ থেকে আসবেন সে দেশের পিসিআর ল্যাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ব্যবস্থা সহজলভ্য না হলে তারা অ্যান্টিজেন বা অন্য কোনো গ্রহণযোগ্য পরীক্ষার সনদ নিয়ে দেশে আসতে পারবেন।

বাংলাদেশে অবস্থানরত কূটনৈতিক মিশনগুলোর কূটনীতিক এবং তাদের পরিবারের সদস্যদেরও পিসিআর ল্যাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষার সনদ থাকতে হবে এবং সেই পরীক্ষা করাতে হবে যাত্রার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে।

বিদেশি উদ্যোক্তা ও বিনিয়োগকারীদেরও বাংলাদেশে আসার পর ভাইরাসের উপসর্গ পাওয়া গেলে তাদের পরবর্তী পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য আইসোলেশন সেন্টার ও হাসপাতালে পাঠানো হবে।

বিমানবন্দরে কর্মরতদের শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করা ছাড়াও যাত্রী, ক্রু, উড়োজাহাজ জীবাণুমুক্তকরণ প্রক্রিয়া যথাযথভাবে করার নির্দেশ দিয়েছে বেবিচক। বাহরাইন, চীন, সৌদি আরব, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, ওমান, কাতার, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাজ্যে চলাচল করা ফ্লাইটের ক্ষেত্রে ৫ ডিসেম্বর থেকে এ নির্দেশনা কার্যকর হবে।

তবে শিডিউল বাণিজ্যিক ফ্লাইট ছাড়া রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে ত্রাণ, মানবিক সাহায্য, প্রত্যাবাসন, বাংলাদেশি নাগরিকদের ফেরত আনা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত কূটনৈতিক ফ্লাইটের ক্ষেত্রে এ শর্ত প্রযোজ্য হবে না।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *