আল মাহমুদ বাংলা সাহিত্যের কালজয়ী কবি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জন্মদিনের আলোচনায় বক্তারা

সারাবাংলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আধুনিক বাংলা সাহিত্যের প্রধানতম কবি আল মাহমুদের ৮৫তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। রোববার সকাল ১০টায় কবির জন্মস্থান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মৌড়াইলে অবস্থিত তার কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন ও জিয়ারত করেন স্থানীয় কবি সাহিত্যিকগণ। এসময় কবি মহিবুর রহিম, সাংবাদিক রেজাউল করিম, কবি আমির হোসেন, কথাসাহিত্যিক শাদমান শাহিদ, কবি নাগর হান্নান, মো. শাহরিয়ার রোকন, মো. হাসান, মো. ইয়াকুবসহ কবি-সাহিত্যিকগণ এতে অংশ নেন।
জিয়ারত শেষে কবির সাহিত্য সাধনার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। আলোচনায় কবি আল মাহমুদকে একজন কালজয়ী কবি হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়। কবি মহিবুর রহিম বলেন, কবি আল মাহমুদ আমাদের সাহিত্যের এক মৌলিক প্রতিভা। কবিতায় এবং কথাসাহিত্যে তিনি সমান পারদর্শী। তাঁর সব গ্রন্থই ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে। কবি আমির হোসেন বলেন, এ যুগের পাঠকের অবশ্য পাঠ্য দুটি গ্রন্থ সোনালী কাবিন ও প্রদোষে প্রাকৃতজন। যা থেকে তরুণ লেখকরা অনুপ্রেরণা পেতে পারে। সাংবাদিক রেজাউল করিম বলেন, আল মাহমুদ ব্রাহ্মণবাড়িবাসীর অহংকার। কোন কিছুই তাঁর খ্যাতিকে আড়াল করতে পারবে না। রম্যলেখক পরিমল ভৌমিক বলেন, এক নোলক কবিতাই তাঁকে বাঙালি পাঠকের কাছে অমর করে রাখবে। শাদমান শাহিদ বলেন, আল মাহমুদ তাঁর লেখনীতে প্রমাণ করেছেন তিনি এ যুগের শ্রেষ্ঠ লেখক। তার সঙ্গে কেবল জীবনানন্দের কিছুটা তুলনা হতে পারে। এসময় কবির সাহিত্য বিষয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ আলোচনা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। উল্লেখ্য, ১৯৩৬ সালের ১১জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মৌড়াইল গ্রামের মোল্লাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন কবি আল মাহমুদ। বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে কীর্তিমান এ কবি নিজের অমরতা নিশ্চিত করে ২০১৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ইন্তেকাল করেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *