আহবায়ক ড. তৌহিদুল ও সচিব সচিব ড. হুমায়ুন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সার্বিক উন্নয়নে রেজিস্ট্রার ফোরামের আত্মপ্রকাশ

সারাবাংলা

ময়মনসিংহ অফিস:
বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন, বিধি-বিধান ও প্রশাসনিক কর্মকান্ডের অসামঞ্জস্যতা দূর করে যুগোপযোগী করার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখতে বাংলাদেশের সরকারি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারদের সমন্বয়ে একটি সংগঠন তৈরির বিষয়ে রেজিস্ট্রাররা ঐকমত্য পোষণ করেন। এর ধারাবাহিকতায় গত ১৫ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে রেজিস্ট্রার ফোরাম অব ইউনিভার্সিটিজ (আরএফইউ) বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের রেজিস্ট্রার ফোরাম। বর্তমানে বাংলাদেশে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা প্রায় ৫০টি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ও প্রায় শতাধিক। টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. ইঞ্জি. মোহা. তৌহিদুল ইসলামকে আহ্বায়ক ও ময়মনসিংহের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. মো. হুমায়ুন কবীরকে সদস্য সচিব করে সাত সদস্য বিশিষ্ট রেজিস্ট্রার ফোরাম অব ইউনিভার্সিটিজ (আরএফইউ) গঠন করা হয়েছে। আরএফইউ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার শেখ রেজাউল করিম, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার ড. মো. শফিকুল আলম ও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার মো. বদরুল ইসলাম সোয়েব। আরএফইউ সদস্য সচিব ড. মো. হুমায়ুন কবীর জানান, সবকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারদের মতামতের ভিত্তিতে প্রাথমিকভাবে সাত সদস্যের একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। আহ্বায়ক কমিটি আগামী তিনমাসের মধ্যে যুতসই একটি গঠনতন্ত্র প্রণয়ন করাসহ সংগঠনটিকে সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করার নিমিত্তে কাজ করবে। ড. হুমায়ুন কবীর আরো জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের রেজিস্ট্রারদের সমন্বয়ে একটি ফোরাম সৃষ্টির বিষয়টি সময়ের দাবি থাকলেও বিভিন্ন প্রতিকূলতায় এতদিন করা সম্ভব হয়ে উঠেনি। তবে এবার মহামারি করোনাকালে অনলাইনে জুম অ্যাপস প্লাটফরম ব্যবহার করে পরপর তিনটি নীতিনির্ধারণী সভার মাধ্যমে রেজিস্ট্রাররা একে অপরের সাথে মিলিত হন। তারা পারস্পরিক যোগাযোগ রক্ষা করে সুষ্ঠুভাবে নীতি-নৈতিকতার সাথে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও সরকারকে সহায়তাসহ সব শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের কল্যাণার্থে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে নিজ নিজ ক্যাম্পাসে শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি, কর্মচারি সমিতির পাশাপাশি সকল বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে তাদের ফেডারেশনও রয়েছে। তাছাড়া সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মহোদয়দের সমন্বয়ে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদ নামের একটি সংগঠন। এবারই প্রথম শুরু হলো বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের রেজিস্ট্রারদের সমন্বয়ে এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ সংগঠন। আরএফইউ সদস্য সচিব ড. মো. হুমায়ুন কবীর জানান, প্রাথমিকভাবে সংগঠনটি শুধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়য়ের রেজিস্ট্রারদের নিয়ে গঠিত হলেও পরবর্তীতে তা দেশের সব প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের রেজিস্ট্রারদেরও পর্যায়ক্রমে এর আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি এটিকে ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে সম্প্রসারণ করার মহাপরিকল্পনা রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা বিশ্বমানে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যেই মূলত এমন পরিকল্পনা। সকলের সহযোগিতা পেলে চূড়ান্ত লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভব।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *