ঈশ্বরগঞ্জে বিয়ের অভিমানে কিশোরের আত্মহত্যা

সারাবাংলা

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিয়ে না করানোর অভিমানে সতের বছরের এক কিশোর আত্মহত্যা করেছে। গত বুধবার উপজেলার মগটুলা ইউনিয়নের নাউরী গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের রমজান আলী তার স্ত্রী ও ছেলে রাকিব(১৭) নরসিংদীতে তাতের কাজ করতো। রাকিব গত এক মাস যাবত বিয়ের জন্য পরিবারের উপর চাপ সৃষ্টি করে আসছিল। পরিবারের আর্থিক সংকটের কারণে এই মুহূর্তে রাকিবকে বিয়ে করাতে পিতামাতা রাজি হয়নি। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে গত মঙ্গলবার নরসিংদী থেকে নাউরি গ্রামের বাড়ীতে আসে। বুধবার সকালে তার দাদী সুফিয়া খাতুনের কাছ থেকে ৩ শত টাকা নিয়ে স্থানীয় মধুপুর বাজারে যায়। বাজার থেকে ফিরে বাড়ির লাকাড়ি রাখার ঘরে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে সন্ধ্যায় ওই ঘরে তার দাদী লাকড়ি আনতে গিয়ে দরজা বন্ধ দেখতে পায়। ঘরের ভিতর থেকে দরজা বন্ধ থাকায় বাড়ীর লোকজন দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে রাকিবকে ঘরের আড়াঁর সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরিবারের লোকজন বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে ওইদিন রাত সাতটার দিকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল কাদের মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের বাবা নরসিংদী থেকে এলাকায় আসলে ইউডি মামলা দায়ের করা হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *