উত্তাল সিলেট তিন ইস্যুতে

সারাবাংলা

সাদিক চৌধুরী, সিলেট ব্যুরো :
তিন ইস্যুতে একমাস থেকে উত্তাল সিলেট। প্রায় প্রতিদিনই সেøাগানে সেøাগানে প্রকম্পিত হচ্ছে বিভিন্ন পথ, উত্তাল হচ্ছে নগরী। অন্যায় অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে আওয়াজ তুলছেন সিলেটের সব স্তরের মানুষ। অপরাধীদের শাস্তির মাধ্যমে চাইছেন অপরাধ আর কলঙ্কমুক্ত একখণ্ড সিলেট।
গত ২৫ সেপ্টেম্বর সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ মুরারি চাঁদ (এমসি) কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণীকে ধর্ষণ করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ন্যাক্কারজনক এঘটনায় ফুঁসে উঠেন সিলেটের আপামর জনতা। ঘটনার পরদিন থেকে দল মত নির্বিশেষে ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে মাঠে নামেন সবাই। আন্দোলন আর প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সরগরম হয়ে উঠে সিলেট। নারীদের শ্লীলতাহানি, নির্যাতন আর যৌন হয়রানির প্রতিবাদে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠনের ব্যানারে পালিত হয় ধারাবাহিক কর্মসূচি। গণধর্ষণের ন্যাক্কারজনক ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ১৫ দিনের মাথায় ১১ অক্টোবর নগরী বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে মর্মান্তিকভাবে প্রাণ হারান আখালিয়া এলাকার যুবক রায়হান আহমদ (৩০)। এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিরুদ্ধে আবারও ক্ষোভে ফেটে পড়েন সিলেটবাসী। রায়হানের খুনিদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে ১২ অক্টোবর আখালিয়া এলাকা থেকে শুরু হয় আরেকটি আন্দোলন। সেই আন্দোলনের দাবানল নগর পেরিয়ে ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ে পুরো সিলেটে। নগরীসহ সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় প্রতিদিনই রায়হান হত্যার প্রতিবাদে রাস্তায় নামছেন বিচারপ্রার্থী জনতা। মিছিল, প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন ও অনশনসহ নানা কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে রায়হানের খুনিদের বিচার দাবি করছেন সিলেটবাসী।
এদিকে, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ইসলামের নবীর কার্টুন দেখানোর পক্ষে সাফাই গাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছেন সিলেটের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। গত দুইদিন থেকে আবারও নতুন এই ইস্যুতে মাঠে নেমেছেন ইসলামী সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীসহ ধর্মপ্রাণ মানুষরা। তারা বাংলাদেশ সরকারের মাধ্যমে সে দেশের সরকারের কাছে পৌঁছে দিতে চাচ্ছেন তাদের প্রতিবাদটুকু।
ফ্রান্সে মহানবীর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে প্রতিদিনই নগরীতে মিছিল ও মানববন্ধন করছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। এদিকে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ, রায়হান হত্যা ও ফ্রান্সে নবী (সা:) কে অবমাননা এ তিন ইস্যুতে আগামী কয়েকদিন বিভিন্ন সংগঠন তাদের বিস্তারিত কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। তাতে সহসাই সিলেটের রাজপথ শান্ত হচ্ছে না বলে মন্তব্য করছেন অনেকে। তাছাড়া এমন গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবেই দেখছেন সবাই।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *