উদ্যোক্তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্য চট্টগ্রামে বিইসিপির মিলন মেলা

সারাবাংলা

চট্টগ্রাম ব্যুরো :
করোনার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সব শ্রেণীপেশার মানুষের অনলাইনে কেনাকাটায় বিশ্বস্ততা বেড়েছে অবিশ্বাস্য গতিতে। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা অনলাইন বিজনেসকে দিয়েছেন নতুন গতি। অনলাইন বিজনেসকে আরও এগিয়ে নিতে চট্টগ্রামে সব উদ্যোক্তাদের ফেসবুক গ্রুপ বেস্ট ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম (বিইসিপি) এর গেট টুগেদার ও দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করে। দিনব্যাপী মেলার আয়োজনে স্টল ঘুরে শপিং ও খানাপিনায় ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা যায় মেলায় ঘুরতে আসা দর্শনার্থীদের। করোনায় লম্বা সময় ঘরবন্দী থেকে মেলায় এসে প্রশান্তি অনুভব করছে বলে জানায় ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা। মেলায় ঘুরতে আসা কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে তারা জানান, করোনার মধ্যে কয়েকমাস ঘরবন্দীতে আমরা ডিপ্রেশনে ভুগছিলাম,এই মেলায় এসে কিছুটা প্রশান্তি অনুভব করছি। কয়েকমাস পর ঘর থেকে বাইরে বের হতে পেরেছি। তাছাড়া মেলায় যথেষ্ট পরিমাণ স্বাস্থ্য বিধি মেনে প্রবেশ করানো হয়েছে। সেই সঙ্গে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টিও লক্ষ্য রেখে স্টল সাজিয়েছেন যা সত্যিই প্রশংসা দাবী রাখে মেলার আয়োজকেরা। মেলায় অংশ নেওয়া কয়েকজন উদ্যোক্তার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বেস্ট ই কমার্স প্ল্যাটফর্ম () মেলা হচ্ছে নতুন উদ্যোক্তাদের কাজের পরিধি ও পরিচিত আরও বাড়ানোর প্ল্যাটফর্ম।নতুন উদ্যোক্তাদের মধ্যে সাকি’স টুকিটাকি র ওনার সাইরিন সাকি বলেন, নিজেদের প্রোডাক্টকে সবার সঙ্গে পরিচয় করা দেওয়ার জন্য বেস্ট ই কমার্স প্ল্যাটফর্ম(ইঊঈচ)যে মেলার আয়োজন করেছে এটা আমাদের নতুন উদ্যোক্তাদরে জন্য সুবর্ন সুযোগ, আমাদের ব্যবসায় পরিধি আরও বৃদ্ধি করার।

গ্রুপের এডমিন আপুদের আন্তরিকতা ও নতুন উদ্যেক্তাদের প্রাণবন্ত ও উৎসবমুখর পরিবেশে আমরা মেলা সম্পূর্ণ করতে পেরেছি। আমরা ননদ ভাবী মিলে মেলায় স্টল দিয়েছি আল্লাহর রহমতে আমাদের সব পণ্য বিক্রি হয়েছে। এটা আমাদের পরবর্তীতে কোন মেলা আরও সাহস জোগাবে। শতাধিক দর্শনার্থীদের অংশগ্রহণে প্রাণবন্ত ছিলো নগরীর গোলপাহাড় মোড়স্থ লাউঞ্জ রেস্টুরেন্টের হলটি। তার মধ্যে স্টল ছিলো ২১টি লোগো স্পন্সর করেছে ৫৯টি, পেইজ স্পন্সর করেছে ৩০টি। মেলার আয়োজনে চট্টগ্রামে ফেসবুক গ্রুপ বেস্ট ই কমার্স প্ল্যাটফর্ম এডমিন প্যানেল বলেন,নতুন উদ্যেক্তাদের কাজের অগ্রগতিকে বাড়িয়ে দিতে আমরা এই মেলার আয়োজন করেছি। এর আগেও আমরা অনলাইনের মেলার আয়োজন করেছিলাম। উদ্যোক্তাদের আগ্রহে এবার আমরা অফলাইন মেলার আয়োজন করেছি। সব উদ্যোক্তাদের আন্তরিকতায় আমরা মেলা সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ করতে পেরেছি। মেলায় অংশগ্রহণ করা সব উদ্যোক্তারা সন্তুষ্ট। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা আরও বড় পরিসরে মেলা আয়োজন করার পরিকল্পনা আছে। তারা আরও বলেন,উদ্যোক্তাদের প্রবল আগ্রহের কারণেই আমাদের করোনার মধ্যে এই মেলার আয়োজন করা। তাও আমরা স্বাস্থ্য বিধি মানার বিষয়টি মাথায় রেখে স্টল সাজানো দর্শনার্থীদের প্রবেশ করানো যাবতীয় বিষয় লক্ষ রেখেই এই আয়োজন। আলহামদুলিল্লাহ দর্শনার্থী ও উদ্যোক্তাদের আন্তরিকতায় সুষ্ঠুভাবে মেলা সম্পূর্ণ হয়েছে। মেলায় উদ্যোক্তাদের পরিচিতি বৃদ্ধির সঙ্গে বিক্রির পরিমাণও বেড়েছে। কিছু কিছু উদ্যোক্তার সকালে স্টল ভর্তি পণ্য সাজিয়ে বসেছেম কিন্তু দিন শেষে সব পণ্য বিক্রি করে বাড়ি ফিরেছেন। এটা নতুন উদ্যোক্তা এবং মেলার জন্য একটা আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে। গত রবিবার সকাল ১০টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত নগরীর গোলপাহাড় মোড়স্থ লাউঞ্জ রেস্টুরেন্টের হল রুমে চলে এই মেলা। সব উদ্যেক্তাদের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে চট্টগ্রামে জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ বেস্ট ই কমার্স প্ল্যাটফর্ম (বিইসিপি) আয়োজিত প্রথম মিলন মেলা। এই মেলায় ছবি স্পন্সর হিসেবে ছিলেন এস ক্লিক ফোটোগ্রাফি। এডমিন প্যানেল মধ্যে ছিলেন,নিপু হাসান,রোকসানা রলি,তানিয়া ইসলাম,রিতা সুলতানা। মডারেটর প্যানেল ছিলেন,মো: সোহেল,ফাহিমা আকতার মাহি,শেখ মামুন এবং রাইজিং স্টার প্যানেল, তানিয়া ইসলাম,আশরাফ উদ্দীন মিন্টু,উম্মে হাবিবা আরশিন, শাফায়েত হোসেন।

মন্তব্য করুন