এবার আইসিসিতে ‘হলুদের সাজে ব্যাট হাতে’ সানজিদার ছবি

খেলাধুলা

স্পোর্টস ডেস্ক: মঙ্গলবার দেশের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অন্যতম আলোচনার বিষয়বস্তু ছিলো নারী দলের ক্রিকেটার সানজিদা ইসলামের গায়ে হলুদের ফটোশুট। যেখানে দেখা গেছে, গায়ে হলুদের পোশাকেই ব্যাট-বল হাতে মাঠে নেমে পড়েছেন সানজিদা। তার এসব ছবি এখন ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

শুধু দেশের মধ্যেই নয়, রীতিমতো বিশ্বব্যাপী ভাইরাল হয়ে গেছে হলুদের সাজে ব্যাট হাতে করা এই ফটোশুটের ছবি। যা এখন আপলোড করা হয়েছে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রোফাইল থেকেও। আইসিসির পাশাপাশি জনপ্রিয় ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোতেও চলে গেছে সানজিদার এই অভিনব ফটোশুটের খবর।

নিজেদের টুইটার হ্যান্ডলে সানজিদার গায়ে হলুদের এই বিশেষ ফটোশুটের কয়েকটি ছবি একসঙ্গে কোলাজ বানিয়ে আপলোড করেছে আইসিসি। যেখানে তারা লিখেছে, ‘পোশাক, গহনা এবং ব্যাট- একজন ক্রিকেটারের বিয়ের ফটোশুট যেমন হওয়া মানায়।’

একই ফটোশুটের ছবি আপলোড করে ক্রিকইনফোতে লেখা হয়েছে, ‘যেই বিয়ের ফটোশুট আমাদের সোজা বোল্ড করে দিয়েছে। বাংলাদেশ দলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার সানজিদা ইসলাম দারুণ কিছু পোজ দিয়েছে। তিনি বিয়ে করেছেন রংপুরের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার মীম মোসাদ্দেককে।’

উল্লেখ্য, গত শনিবার ক্রিকেটার মীম মোসাদ্দেকের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন সানজিদা। শুক্রবার ছিল গায়ে হলুদ। হলুদের ছবি তুলতেই রংপুর স্টেডিয়ামে ছুটে গিয়েছিলেন সানজিদা। সেখানে ফটোসেশনের একপর্যায়ে ব্যাট-বল দেখে ‘কনে’ আর নিজেকে সামলে রাখতে পারেননি।

স্থানীয় ছেলেপুলেরা টেনিস বল দিয়ে ক্রিকেট খেলছিল। সানজিদা তাদের কাছ থেকে ব্যাটটা চেয়ে নেন। পেছনে অগোছালো তিন স্ট্যাম্প রেখে নেমে পড়েন ব্যাটিংয়ে। গিয়ে ছিলেন ফটোগ্রাফির জন্য, সেই সুন্দর মুহূর্ত আর মিস হয় কী করে! সানজিদার গায়ে হলুদের সাজে এমন ব্যাটিংয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হতে সময় নেয়নি।

ক্রিকেটের প্রতি টান ছোটবেলা থেকেই। ২০০৯ সালে ভর্তি হন বিকেএসপিতে। ২০১২ সালে জাতীয় দলের জার্সিতে অভিষেকও হয়ে যায় সানজিদার। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের হয়ে ৫৪ ওয়ানডে ও ১৬টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। ২০১৮ সালে এশিয়া কাপজয়ী দলের সদস্যও ছিলেন এই ব্যাটসম্যান।

সানজিদার স্বামী মীম মোসাদ্দেক পরিচিত মুখ না হলেও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেন রংপুর বিভাগীয় দলের হয়ে। ঢাকায় খেলেছেন প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *