ওজন কমাতে চান?

লাইফ স্টাইল সুস্থ্ থাকুন

ডেস্ক রিপোর্ট: বিভিন্ন কারণে ওজন বাড়তে পারে। বর্তমান সময়ে বয়স নির্বিশেষে সবাই চায় ওজনটা একটু কমিয়ে নিজেকে একটু সুদর্শন রাখতে। পাশাপাশি ওজন কমানোতো, বিভিন্ন রোগবালাই থেকে নিজেকে রক্ষা করা। কারণ ওজন বেশি হলে বিভিন্ন রোগে মানুষ আক্রান্ত হয় বেশি।

ডায়াবেটিস থেকে শুরু করে আরো অনেক মরণব্যাধি। তাই নিজেকে রোগবালাই থেকে রক্ষা করতে এবং নিজেকে সুদর্শন দেখাতে ওজন কমানোর কোনো বিকল্প নেই। ওজন কমানো মানে কিন্তু আপনার বয়স এবং উচ্চতার সাথে আপনার ওজন টাকে ম্যানেজ করে রাখা।

ওজন কমাতে ডায়েট প্ল্যান নিতে হয়। অনেকে কিটো ডায়েট করেন। কেউ আবার স্বাস্থ্যকম খাবার খেয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন। অনেকে খাবার কম খেয়ে ব্যায়াম করে শরীরের মেদ কমান। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া আপনার ওজন কমাতে প্রধান ভূমিকা পালন করে। তবে এমন উপায়ও রয়েছে, যাতে আপনি কম ডায়েট করে এবং পুরোদমে খাবার খেয়েও ওজন কমাতে পারেন।

ওজন নিয়ে যারা সমস্যায় ভুগছেন, তারা স্বভাবতই বিচার বিবেচনা না করেই অনেক মন ভোলানো কথায় প্রভাবিত হয়ে যেনতেনভাবে ওজন কমাতে বিভিন্ন পদ্ধতি গ্রহণ করেন। কিন্তু এভাবে এতদ্রুত ওজন কমানোর কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।
তাহলে সমস্যার সমাধান কি একেবারেই নেই? অবশ্যই আছে। একটু ইচ্ছে আর সামান্য ধৈর্য থাকলে ঘরে বসেই ওজন নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। জীবনযাত্রায় ছোট ছোট তিনটি পরিবর্তন এনেই দেখুন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে এমন তিনটি সহজ উপয়ের কথা বলা হয়েছে, যাতে সহজেই কমে যাবে ওজন। কী কী করবেন?

গরম পানি
প্রতিদিন সকালে উঠে ধীরে ধীরে এক গ্লাস গরম পানি খেতে পারেন। হালকা গরম পানি শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে সাহায্য করবে। তারই সঙ্গে শরীরে জমে থাকা ক্ষতিকর সব পদার্থের থেকেও মুক্তি দেবে।

খাবার খাওয়ার নিয়ম
জমিয়ে মাংস-বিরিয়ানি খাওয়া হয়েছে? তাহলে এবার নৈশভোজ হালকা করে দিন। তাতে হজমের প্রক্রিয়া স্বাভাবিকে ফিরবে। দিনের বেলা ভারী খাবার খান। সন্ধ্যার পর থেকে কার্বোহাইড্রেট কম খান। এতে বিপাক হার বাড়বে। তা হলেই ওজন অনেকটা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

খাবারের সময় নিয়ন্ত্রণ
প্রতিদিন চারবার খাবার খান? তার জায়গায় কয়েক দিন তিনবার করে খান। তাতে পেট কিছুটা বিশ্রাম পাবে। খাবার হজম তাড়াতাড়ি হবে। তাতেই ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

প্রসঙ্গত, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ওজন বৃদ্ধি পায় এমন খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। এ ছাড়া ওজন কমানোর জন্যে স্বল্প সময়ের ব্যবধানে শরীরচর্চা অনেক বেশি কার্যকর।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *