করোনা: প্রাণহানি ৫ হাজার ছাড়াল, মোট আক্রান্ত তিন লাখ ৫২ হাজার ১৭৮ জন

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যাও ছাড়িয়েছে সাড়ে তিন লাখ। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২৮ জনের মৃত্যু হওয়ায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৭ জনে। একই সময়ে নতুন করে এক হাজার ৫৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল তিন লাখ ৫২ হাজার ১৭৮ জনে।

আজ মঙ্গলবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনাভাইরাস বিষয়ক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘন্টায় ১৪ হাজার ১৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় এক হাজার ৫৫৭ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। গতকালের চেয়ে আজ ১৪৮ জন কম শনাক্ত হয়েছেন। গতকাল ১৩ হাজার ৫৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছিল এক হাজার ৭০৫ জন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল এবং বাসায় মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৭৩ জন। তাদের নিয়ে মোট সুস্থের সংখ্যা দুই লাখ ৬০ হাজার ৭৯০ জন।

গত বছরের শেষের দিকে চীনের উহান শহরে প্রথমে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। এর দুই মাসেরও বেশি সময় পর মার্চের ৮ তারিখে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর ১০ দিনের মাথায় ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবর আসে।

প্রায় এক মাস পর ২০ এপ্রিল মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছিল। তা ৫০০ ছাড়ায় গত ২৫ মে। এরপর ১০ জুন মৃতের সংখ্যা হাজার ছাড়ায়। দেড় হাজার ছাড়ায় ২২ জুন। করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যুর ৮৫ দিন পর ৫ জুলাই মৃতের সংখ্যা দুই হাজারের ঘর ছাড়িয়ে যায়। এরপর তা আড়াই হাজারের ঘর ছাড়িয়ে যায় ১৭ জুলাই।

২৮ জুলাই সেই সংখ্যা তিন হাজার স্পর্শ করে; ১২ আগস্ট পৌঁছায় সাড়ে তিন হাজারে। তারপর ১৩ দিনের মাথায় ২৫ আগস্ট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ছাড়িয়ে যায়। এই তালিকায় আরও ৫০০ নাম যোগ হতে সেই ১৩ দিন লাগল।

এর মধ্যে ৩০ জুন এক দিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বুলেটিনে, যা এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যু।

বাংলাদেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তিন লাখ পেরিয়েছিল গত ২৬ অগাস্ট। এর মধ্যে ২ জুলাই ৪ হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা একদিনের সর্বোচ্চ শনাক্ত।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *