কালীগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই নারী শ্রমিকের মৃত্যু

সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট : কালীগঞ্জ পৌরসভার খঞ্জনা এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুই নারী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। আজ (রোববার) সকাল সোয়া ৭টার দিকে টঙ্গী-ভৈরব রেল সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুদিক থেকে ট্রেন আসতে দেখে ওই দুই শ্রমিক ভয়ে ছোটাছুটি করতে গিয়ে সুরমা ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয় বলে জানান স্থানীয়রা।

নিহতরা হলেন  ভাদগাতী এলাকার কবিরের স্ত্রী জেসমিন (৪২) এবং বড়নগর এলাকার কামরুলের স্ত্রী শাহীনুর (২৫)। তারা দুজনই হা-মীম গ্রুপের শ্রমিক ছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, রোববার সকালে দুই নারী রেলসড়ক দিয়ে হেঁটে ভাদার্ত্তী এলাকায় কারখানায় কাজে যাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে খঞ্জনা এলাকায় পৌঁছলে সকাল সোয় ৭টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পারাবত এক্সপ্রেস এবং একই সময়ে বিপরীত দিক থেকে অপর লাইন দিয়ে সুরমা মেইল ট্রেন আসছিল।

সে সময় তারা দুজন খঞ্জনা এলাকায় রেলওয়ের সিগন্যাল খুঁটিসংলগ্ন স্থানে ছিলেন। দুদিক থেকে ট্রেন আসতে দেখে তারা ছোটাছুটি করতে গিয়ে সুরমা ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

হা-মীম গ্রুপের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান জানান, ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত জেসমিন ও শাহীনুর হা-মীম গ্রুপে শ্রমিক হিসেবে চাকরি করত।

কালীগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবদুস ছালাম বলেন, সকালে ওই দুই নারী কাজে যাওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। পরে রেললাইন দিয়ে হেঁটে হা-মীম গ্রুপের কারখানায় যাওয়ার পথে খঞ্জনা এলাকায় পৌঁছলে হঠাৎ করেই দুদিক থেকে দুই ট্রেন আসছিল। সে সময় তারা ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে তাদের স্বজনরা লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে গেছেন।

আড়িখোলা রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী স্টেশনমাস্টার সাইদুল ইসলাম বলেন, সকাল সোয়া ৭টার দিকে একসঙ্গে সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেস ও ঢাকাগামী সুরমা মেইল ট্রেন আড়িখোলা স্টেশন এলাকা অতিক্রম করে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই ট্রেনে কাটা পড়েই দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *