কালুখালীতে যুবক রাশেদুলকে নির্যাতন : গ্রেফতার ২

সারাবাংলা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি:
রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার সাওরাইল ইউনিয়নে গ্রাম্য শালিসে মধ্যযুগীয় কায়দায় রাশেদুল শেখ নামের এক যুবককে নির্যাতনের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলী ও তার এক সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এঘটনায় রাতে নির্যাতনের শিকার রাশেদুল শেখের পিতা ইমান আলী শেখ বাদী হয়ে কালুখালী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। যার প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার রাতেই কালুখালী থানা পুলিশ ইউপি চেয়ারম্যানকে মৃগী থেকে গ্রেফতার করে। মূল অভিযুক্ত মো. শহিদুল ইসলাম আলী সাওরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। জানা যায়, গত ২৪ জানুয়ারি বিকালে চর পাতুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শাওরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলীর নেতৃত্বে একটি গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়। সালিসে একটি মেয়েলি ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাশেদুলকে প্রকাশ্যে ১শ জুতাপেটা ও জরিমানা করা হয়। পড়ে ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে ওই যুবকের পুরুষাঙ্গে ইট বেঁধে বিদ্যালয় মাঠ ঘুড়ায়। এতে ওই যুবকের পুরুষাঙ্গ থেকে রক্তক্ষরণ শুরু হলে গ্রাম্য এক ডাক্তার দিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
আরও জানা যায়, পড়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে রাশেদুলকে তার নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখার পাশাপাশি হুমকি দেওয়া হয় এবং চিকিৎসা নিতে যেন বাইরে যেতে না পারে সে চেয়ারম্যানের নিজস্ব লোকজন দিয়ে করা হয় পাহাড়ার ব্যবস্থা। সে সময় কেউ ৯৯৯ এ ফোন করে বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করে। পড়ে কালুখালী থানা পুলিশ নির্যাতিত ওই যুবককে উদ্ধার করে পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। এর আগেও অনেকে চেয়ারম্যানের নির্যাতনের শিকার হয়েছে। কালুখালী থানার ওসি মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান জানান, জরুরী সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে রাশেদুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন এবং মামলার প্রেরক্ষিতে সাওরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলীসহ দুই জননকে গ্রেফতার করেছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *