কিশোরগঞ্জে করোনার রোগী ক্রমেই বাড়ছে

সারাবাংলা

রাজিবুল হক সিদ্দিকী, কিশোরগঞ্জ থেকে:
কিশোরগঞ্জে করোনা রোগী বৃদ্ধি পাওয়ায় চিকিৎসকরা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে। জেলায় ৩টি মেডিকেল কলেজ ও ১২টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ১টি ২৫০ শয্যা হাসপাতালে করোনা রোগীদের সেবা চলছে। জেলায় করোনার জন্য নির্ধারিত শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ১৫০টি শয্যার মধ্যে রোগী ভর্তি আছেন ১২৫ জন।
জেলায় আশঙ্কাজনক হারে করোনার রোগী বাড়ছে। গত এক সপ্তাহে জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬৬৯ জনের। এর মধ্যে জেলা সদরেই রয়েছেন ৪৬৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৩০২ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১০৭ জনের। এ পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬ হাজার ৩৬৮ জনের। মোট মারা গেছেন ৯১ জন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলাতেই মৃত্যু হয়েছে ৩৩ জনের। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ২৫৩ জন।
বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ২৪ জন। এদের মধ্যে ৭৫ জন হাসপাতালে এবং ৯৪৯ জন হোম আইসোলেশনে আছেন। জেলার একমাত্র অষ্টগ্রাম উপজেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত কোনো রোগী নেই।
বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত মোট ১ হাজার ২৪ জন রোগীর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৭১২ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ১৩ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৩৫ জন, তাড়াইল উপজেলায় ২৩ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৩১ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৬০ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ২৯ জন, ভৈরব উপজেলায় ৮৫ জন, নিকলী উপজেলায় ৫ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ২০ জন, ইটনা উপজেলায় ৯ জন এবং মিঠামইন উপজেলায় ২ জন রয়েছেন।
হাসপাতালে কর্মরত ডা. মুহাম্মদ আবিদুর রহমান ভূঁইয়া জানান, গত কয়েক দিনে করোনা রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে হাসপাতালের ২ জন ডাক্তার, ২৫ জন নার্স, ৩ জন কর্মচারীসহ মোট ৩০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এতে চিকিৎসাসেবা হুমকির মুখে পড়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *