কুষ্টিয়ার এসপিকে হত্যার হুমকি, থানায় মামলা

সারাবাংলা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়াতে ৫ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুর এবং ১৭ ডিসেম্বর ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের বিপ্লবী নেতা বাঘাযতীন এর ভাস্কর্য ভাংচুরের পর কুমারখালী উপজেলার বাঘা যতিনের বাস্তু ভিটায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখার পর পরই দেশজুড়ে আলোচনায় আসেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত। তার বক্তব্য উসকানিমূলক এমন বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই পুলিশ সুপারকে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়েছে। কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাতকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে সদর মডেল থানায় মামলা হয়েছে। গত ৩১ ডিসেম্বর কুষ্টিয়া গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপ-পরিদর্শক মো. কায়েস মিয়া বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলাটি করেন। ২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও ১৮৬০ সালের পেনাল কোডের ধারায় মামলাটি করা হয়। ডিবির পরিদর্শক আশরাফুল আলম মামলাটি তদন্ত করছেন।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক আশরাফুল আলম বলেন, এজাহারে উল্লেখ করা ফেসবুক আইডি ও ইউটিউব চ্যানেলগুলো কারা, কীভাবে চালাচ্ছেন; সেগুলো পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। অচিরেই তাঁদের শনাক্ত করা সম্ভব হবে। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, কুষ্টিয়ার আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ দমন, জঙ্গি ও ধর্মীয় উগ্র-মৌলবাদ নিয়ন্ত্রণে এসপি এস এম তানভীর আরাফাত কাজ করে যাচ্ছেন। গত ৫ ডিসেম্বর কুষ্টিয়া শহরের পাঁচ রাস্তার মোড়ে বঙ্গবন্ধুর নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুর হয়। মামলা হলে দ্রুততম সময়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর ১৭ ডিসেম্বর কুমারখালীতে বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনায় মামলা হলে দ্রুততম সময়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠান। ২১ ডিসেম্বর কুমারখালীর কয়া মহাবিদ্যালয়ে নাগরিক পরিষদের ব্যানারে প্রতিবাদ সভায় এসপি বক্তব্য দেন। তাঁর মূল বক্তব্যের ভিডিও ও ছবি খন্ডিতভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রচার করছে দুর্বৃত্তরা। এসপিকে হত্যার হুমকিও দিচ্ছে তারা। ফেসবুকের এমন ১৭টি ও ইউটিউবের ১টি চ্যানেলের আইডি মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *