কুড়িগ্রামে গরু বোঝাই পিকআপ ছিনতাই

সারাবাংলা

রফিকুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম থেকে:
কুড়িগ্রামের এক পরিবহন ব্যবসায়ীর গরু বোঝাই পিকআপ ছিনতাই হওয়ার পর ৫৩ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত সন্ধান মেলেনি। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও উল্লেখযোগ্য কোন তৎপরতা না থাকায় পরিবহন ব্যবসায়ী নুরনবী সরকার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলাধীন নগরাজপুর এলাকার বাসিন্দা আমজাদ হোসেনের পুত্র নুরনবী সরকার পেশায় একজন পরিবহন ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন ধরে তিনি পরিবহন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। প্রতিদিনের ন্যায় গত ১৯/০৮/২০২০ইং তারিখে গরু পরিবহনের জন্য নুরনবী সরকার গরুর দালালের মাধ্যমে তার আনুমানিক ১০ লক্ষ টাকা মূল্যের জ্যাক পিকআপ গাড়ী ভাড়া দেন। পিকআপ গাড়ীতে আনুমানিক ৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা মূল্যের মোট ১১টি গরু বোঝাই করে ঢাকার উদ্দেশ্যে ঘটনার দিন অর্থাৎ ১৯/০৮/২০২০ইং যাত্রা শুরু করে। ওই দিন রাত্রি সাড়ে ৩ ঘটিকার সময় বগুড়া জেলার শেরপুর থানাধীন দশমাইল স্ট্যান্ডের পার্শ্ববর্তী কলতাপাড়া এলাকাস্থ আনোয়ারা নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ২০ গজ দক্ষিণে বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে পৌছিলে পিছন দিক থেকে একটি অজ্ঞাত নামা মাজদা পিকআপ গাড়ী এসে গরু বোঝাই পিকআপ গাড়ীর সামনে এসে ব্যারিকেট সৃষ্টি করতঃ পিকআপটি থামিয়ে অজ্ঞাত নামা ৩/৪ জন ছিনতাইকারী নেমে এসে গাড়িতে থাকা সবাইকে দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এলোপাথারী মারপিট শুরু করে। এক পর্যায়ে গরু ব্যবসায়ীদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে তাদেরকে পিকআপ গাড়িতে উঠতে বাধ্য করে। গরু বোঝাই পিকআপ গাড়িটি ছিনতাই করে নিয়ে যায় এবং মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে গরু ব্যবসায়ীদের মারপিট করে এক এক করে নামিয়ে দেয়। এ সময় ছিনতাইকারীরা ৫টি মোবাইল ফোন সহ নগদ টাকা, গরু ও পিকআপ লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বগুড়া শেরপুর থানায় ৩০/০৯/২০২০ইং তারিখ গরু ব্যবসায়ী নাঈম হোসেন নিজে বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ৪০, তারিখঃ ৩০/০৯/২০২০ইং। ছিনতাইয়ের ৫৩ দিন অতিবাহিত হলেও গরু বোঝাই পিকআপের কোন সন্ধান না পাওয়ায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরিবহন ব্যবসায়ী নুরনবী সরকার। তিনি জানান, আইনের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল। পুলিশ-প্রশাসন দ্রুততার সঙ্গে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করলে আমার পিকআপ গাড়ীটি উদ্ধার হতো।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *