কুড়িগ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে আহত ৪

সারাবাংলা

রফিকুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম থেকে : কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ঘোগাদহ ইউনিয়নের কামার হাইল্যা গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার সকালে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৪ জন গুরুতর আহত হয়ে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে মৃত- ইয়াছিন আলীর পুত্র নাদের হোসেন নিজে বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ঘোগাদহ ইউনিয়নের কামার হাইল্যা গ্রামের বাসিন্দা মৃত ইয়াছিন আলীর পুত্র নাদের হোসেন যার ভ্রাতা মজিবর রহমান, ছকিবর রহমান, ভগ্নি আনোয়ারা বেগম ও মনোয়ারা বেগম ঘোগাদহ মৌজার জে এল নং-৫৫, এসএ খতিয়ান নং- ৪১৪, আরএস খতিয়ান নং- ৩৩৫ যার এসএ দাগ নং- ২৩৩৪, আরএস দাগ নং- ৩৭৪৬ ও ৪০১৮ ভুক্ত দাগে জমির পরিমাণ ৪১ শতাংশ। যা দীর্ঘ প্রায় ৭০ বছর যাবৎ পৈত্রিক সম্পত্তি হিসেবে বংশানুকক্রমে হালচাষ করে ভোগ দখল করে আসছে। আসামী মৃত- কয়ছার আলীর পুত্র শহিদুল ইসলাম (৩৫), মৃত- বাহার উল্যার পুত্র আবুদ আলী (৪৫), মৃত- নেল্লা মামুদ এর পুত্র হায়দার আলী (৫০), মৃত- খয়বর আলীর পুত্র সেল্লু মিয়া (৩০), মৃত- আবেদ আলীর পুত্র ইছাহাক আলী, হায়দার আলীর পুত্র মাহালম (৩২), মৃত- কয়ছার আলীর পুত্র সফিকুল ইসলাম (৩০), মৃত- খয়বর আলীর পুত্র এরশাদ আলী (২৫), মৃত- নালো সেখ এর পুত্র মোসকেদ আলী (৪৫), আবুদ আলীর পুত্র রফিক মিয়া (২৭), মৃত- মহির উদ্দিনের পুত্র হাকিম আলী (৩৫), মৃত- কাছু মামুদের কন্যা রহিমা বেগম (৪০), খয়বর আলীর স্ত্রী জিবরন বেগম (৪৫) সর্ব সাং- কামার হাইল্যা গণের সহিত দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে স্থানীয় ভাবে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহ আলম মিয়ার উপস্থিতিতে কয়েক দফা শালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ইয়াছিন আলীর পুত্র নাদের হোসেনের ভ্রাতা ও ভগ্নিগণ তাহাদের পৈত্রিক সূত্রে মালিকানা জমি যাহা হালচাষ করে ভোগ দখল করে আসছেন। উক্ত ৪১ শতক জমি বিভিন্ন সময় ক্রয়-বিক্রয়ের মাধ্যমে মালিকানাও আংশিক পরিবর্তন হয়েছে। কিন্তু পূর্ব মালিকানা দাবি করে আসামীগণ আইনী প্রক্রিয়ায় জমির এসএ, আরএস রেকর্ড সংশোধন না করে এবং ভূমি অফিসের মাধ্যমে নাম খারিজ না করে সম্পূর্ণ অবৈধ পেশী শক্তির বলে কোন প্রকার কারণ ছাড়াই বর্তমান ভোগদখলীয় মালিক এর জমি জবর দখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছে বলে জানা যায়। গত মঙ্গলবার সকালে কোন প্রকার কারণ ছাড়াই পূর্ব পরিকল্পনা মতে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাদী পক্ষের লোকজনের উপর অতর্কিত সন্ত্রাসী কায়দায় নগ্ন হামলা চালায়। বাদীপক্ষের লোকজনকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। মারপিটের ঘটনায় বাদীর জমিতেই মমতা বেগম, আনোয়ারা বেগম, ছকিবর ও বাচ্চু মিয়া গুরুতর আহত হয়ে মাটিতেই লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় গুরুতর আহত ৪জনকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয়। আহতরা এখন চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে মৃত- ইয়াছিন আলীর পুত্র নাদের হোসেন নিজে বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *