কুড়িগ্রাম জেলা ব্যাপি প্রাণি সম্পদ মেলা

সারাবাংলা

মোঃ রফিকুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি:
বিশ্ব দুগ্ধ সপ্তাহ ও দুগ্ধ দিবস উপলক্ষে প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন ও নতুন প্রযুক্তি সম্প্রসারণের লক্ষ্যে কুড়িগ্রাম জেলায় দিনব্যাপী প্রাণি সম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রাণি সম্পদ অফিস চত্বরে অনুষ্ঠিত ৫ জুন শনিবার এই মেলা উদ্বোধন করেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমান উদ্দিন মঞ্জু। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার আমিনুল ইসলাম বুলবুল এর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো: আব্দুল হাই সরকার, উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. হাবিবুর রহমান, জেলা ডেইরি মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুস সাবের ও সাধারণ সম্পাদক সুজিৎ চক্রবর্তী। সদর উপজেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারী হাসপাতাল আয়োজিত এই মেলায় লালতীর ও ব্র্যাকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ২৫টি স্টল অংশ নেয়। মেলায় বিভিন্ন জাতের প্রাণি, পাখি ও উন্নত জাতের ঘাস প্রদর্শন করা হয়। এদিকে উলিপুরে প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ডেইরি সম্পদের প্রসার ও জনগনের মাঝে এ সম্পদ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে ৫ জুন শনিবার কুড়িগ্রামের উলিপুর এম এস স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে উলিপুর প্রাণীসম্পদ দপ্তর ও হাসপাতালের বাস্তবায়নে এক প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। পায়রা উড়িয়ে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উলিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন মন্টু। এসময় তার সাথে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর -এ জান্নাত রুমি, প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল আজিজ প্রধান, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা ইমতিয়াজ কবির প্রমূখ। পরে এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর -এ জান্নাত রুমির সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, ডাঃ আব্দুল আজিজ প্রধান, উপজেলা ডেইরি এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ জাহিদুল ইসলাম সাজু, উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম, সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা ইমতিয়াজ কবির প্রমূখ। ডাঃ আজিজ প্রধান বলেন, ডেইরি সম্পদের উন্নয়নে সরকারের সহযোগিতার পাশাপাশি জনগণের অংশ গ্রহণে উলিপুর উপজেলা অনেক দূর এগিয়েছে।এ বিষয়ে সহযোগিতার জন্য প্রাণী সম্পদ দপ্তর নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে প্রদর্শনীতে অংশ গ্রহণকারী সকল খামারী ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনাদের পরিশ্রমের ফসল এ খামার।এর মাধ্যমে জনগণের পুষ্টি চাহিদা পূরণ হবে আর সমৃদ্ধির পথে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। পরে অংশগ্রহণকারী সকল খামারী ধন্যবাদ জানানো হয় এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে খামারিদের পুরুস্কৃত করা হয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *