কুয়াকাটার জাতীয় উদ্যান নামে আছে কাজে নেই বিনোদন থেকে বঞ্চিত পর্যটক

সারাবাংলা

হাফিজুর রহমান আকাশ, কলাপাড়া থেকে : পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার জাতীয় উদ্যান ধ্বংস স্তুপে পরিণত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সংস্কারে কোন কার্যকরী উদ্যোগ না থাকায় জৌলসহীন হয়ে পড়েছে এটি। সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মান করা এ উদ্যানটি কোন কাজে আসছে না। সাগরের অব্যাহত ভাঙনে আস্তে আস্তে বিলীন হয়ে যাচ্ছে ঝাউবন আর পিকনিক স্পটসহ মূল্যবান অবকাঠামো। নেই শিশুদের বিনোদনের জন্য খেলনা সামগ্রী। এতে করে বিনোদন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন পর্যটকসহ স্থানীয়রা। উদ্যানটি জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার করার দাবি তাদের।
কুয়াকাটা পর্যটন এলাকা ও ফাতরার সংরক্ষিত বনাঞ্চালে ২০০৫-০৬ অর্থ বছরে উপকুলীয় বন বিভাগ ৩ হাজার একর জমিতে প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে কুয়াকাটা জাতীয় উদ্যান স্থাপন করা হয়। পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে এখানে নেওয়া হয় নানা পরিকল্পনা। খনন করা বিশাল মনোরম লেক, নির্মাণ করা হয় বেশ কয়েকটি পিকনিক সেড, রোপণ করা দেশী- বিদেশী নানা প্রজাতির গাছপালা। যা অল্পদিনের মধ্যেই এটি পর্যটকসহ সকলের কাছে দর্শনীয় স্থানে পরিনত হয়। কিন্তু ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর সুপার সাইক্লোন সিডর কুয়াকাটা উদ্যানটি লন্ডভন্ড করে দেয়। ধবংস হয়ে যায় রাস্তাঘাট, সেতু-পুলসহ প্রায় সব স্থাপনা। ২০১০ সালে পার্কটি জাতীয় উদ্যানে রূপান্তরিত করা হলেও সিডর পরবর্তীতে এখানে কোন কার্যকরি পদক্ষেপ না নেয়ায় পর্যটক শূন্য হয়ে পরেছে এ উদ্যানটি। ফলে সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব।
স্থানীয় জসিম জানান, বিনোদনের জন্য উদ্যানটি রক্ষনাবেক্ষন ও সংস্কার করে সুস্থ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দরকার। ঢাকা থেকে আসা পর্যটর হারুন আহমেদ জানান, জাতীয় উদ্যানটি সংস্কার করলে আরো একটি পর্যটন স্পর্ট বাড়বে। বন কর্মকর্তা বলেন, উদ্যানটি সংস্কাওে জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে জানালেন। উদ্যানটি দ্রুত সংস্কার করে পর্যটকসহ স্থাণীয়দের বিনোদনের সুযোগ করে দিবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *