কেরানীগঞ্জে স্বামীকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ স্ত্রীর বিরুদ্ধে

নগর–মহানগর সারাবাংলা

রানা আহমেদ, কেরানীগঞ্জ থেকে
ঢাকার কেরানীগঞ্জে পরকীয়ার জেরে মামুন (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রী পারভিন বেগম (৩০) এর বিরুদ্ধে। নিহত মামুন তিন সন্তানের জনক। তিনি ঢাকার চকবাজারে একটি প্লাস্টিক কারখানায় চাকরি করতেন। গত শনিবার কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এঘটনায় নিহতের স্ত্রী পারভীন বেগম সহ তার বড় বোন ও বোন জামাই হাফেজ মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছেন। এর আগে গত শুক্রবার মামুন আত্মহত্যা করে। নিহতের ভাগ্নে মো. কামাল মিয়া জানান, নিহত মামুন চকবাজার ইসলামবাগ এলাকার মনা হাজির গলির ৭০/২৫ নং নিজস্ব বাসায় বসবাস করতেন। গত শুক্রবার রাতে তার স্ত্রীর বড় বোনের বাড়িতে তাকে দাওয়াত দিয়ে নিয়ে আসে। নিহতের স্ত্রী পারভীন মামুনের ভাগ্নিকে জানান তার মামা (মামুন) রাতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সংবাদ পেয়ে ভোরে সে বাড়িতে গিয়ে দেখতে পাই মামার মরদেহ মাটিতে পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দেয়। কামাল মিয়া দাবি করেন, তার মামাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
নিহত মামুনের বাবা আব্দুল রাজ্জাক জানান, মামুন তার বোনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বের হয়। মামুন বোনের বাসায় না গিয়ে স্ত্রীর ফোন পেয়ে তার বড় বোনের বাসায় যায়। রাতে মামুনের ভাগ্নিকে স্ত্রী পারভীন জানায়, তার মামা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তিনি আরও বলেন, মামুনের সঙ্গে পুত্রবধূ পারভীন ও তার বড় বোনের সঙ্গে অনেকদিন যাবৎ বিবাদ ছিল। কিন্তু কি কারণে এ বিবাদ তা কখনো আমার ছেলে বলেনি। আমার ছেলে স্ত্রীর পরকীয়ার বিষয়টি জানার কারণে আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। তাই আমি আমার ছেলের হত্যাকারীদের সঠিক বিচার ও ফাঁসি দাবি জানান। এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী মাইনুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি যেহেতু রহস্যজনক, তাই এ বিষয়ে যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এঘটনায় নিহতের বাবা আব্দুল রাজ্জাক মিয়া বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *