কোহলির চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত রশিদ

খেলাধুলা

স্পোর্টস ডেস্ক:

করোনা ভাইরাসের আগেও মাঠে ছিলেন তিনি। তবে, করোনার কারণে ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকে লম্বা একটা বিরতি গেলো। এই বিরতিতে ক্রিকেট থেকে সম্পূর্ণ দুরে ছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দিনের হিসেবে সময়টা ২০২ দিন।

লম্বা এই বিরতির পর অবশেষে আজ মাঠে নামছেন ভারত এবং রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি। প্রতিপক্ষ ডেভিড ওয়ার্নারের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

একদিকে রশিদ খান বনাম বিরাট কোহলি। অন্যদিকে ডেভিড ওয়ার্নার বনাম নবদীপ সাইনি। সোমবার আইপিএলের তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হতে চলেছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু এবং সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সম্মুখ সমরে বিরাট কোহলি এবং ডেভিড ওয়ার্নার।

তবে এই ম্যাচে অবশ্যই নজর থাকবে দুই দলের তরুণ তারকাদের দিকে। আরো থাকবে এমনই টুকরো-টুকরো লড়াই। তবে সবার নজর কিন্তু দীর্ঘদিন পর মাঠে নামা বিরাটের দিকেই। কেমন পারফর্ম করেন ভারত অধিনায়ক? দেখার অপেক্ষায় ভক্তরা।

প্রতিবারই তার দলকে নিয়ে প্রত্যাশার পারদ তুঙ্গে ওঠে। প্রতিবারই দেখা যায় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বাঙ্গালুরু গায়ে জড়িয়েছে ব্যর্থতার চাদর। এবার ছবিটা পাল্টাতে মরিয়া তিনি। আজ, সোমবার আইপিএল অভিযানে নামছেন বিরাট কোহলি। তার সামনে সাবেক চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে বরাবরই ভালবাসেন কোহলি। আরসিবি’র সাফল্য অনেকটাই নির্ভর করবে তার চওড়া ব্যাটের ওপর; কিন্তু কোহলি জানেন শুধু তিনি রান পেলেই হবে না, সামগ্রিক পারফরমেন্স ভাল হতে হবে। প্রতিটা বিভাগকেই সফল হতে হবে। কোহলি, ডি ভিলিয়ার্স তো আছেনই, আরসিবি’র ব্যাটিং আরও শক্তিশালী হয়েছে অসি তারকা অ্যারোন ফিঞ্চ দলে আসায়।

মারকাটারি তরুণ ওপেনার দেবদূত পাড়িক্কালকে নিয়েও আশায় আরসিবি সমর্থকরা। গত আইপিএল কোহলিদের কাছে ছিল বিভীষিকা। সবার শেষে ছিল আরসিবি। তাই এবার দলগঠনে অনেক সতর্ক কোহলির দল। স্পিন বিভাগে ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল, ওয়াশিংটন সুন্দর, অ্যাডাম জাম্পা, মঈন আলিদের মতো বোলার আছে।

গতবার ডেথ বোলিংয়ে দুর্বলতা ভুগিয়েছিল, এবার নেওয়া হয়েছে প্রোটিয়া বোলিং অলরাউন্ডার ক্রিস মরিসকে। বায়ো বাব্ল-এ থাকায় দলের স্পিরিট বাড়ার কথা জানিয়েছেন কোহলি। সেই স্পিরিটেই বাজিমাত করতে চাইছেন আরসিবি অধিনায়ক।

২০১৬ সালে ওয়ার্নারের নেতৃত্বেই আইপিএল জিতেছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এবার ওপেনিংয়ে ওয়ার্নার-বেয়ারস্টো বিধ্বংসী জুটির পাশাপাশি রয়েছেন কেন উইলিয়ামসন, মিচেল মার্শ, মনিশ পান্ডেরা। উইকেটরক্ষকের দায়িত্বে ঋদ্ধিমান সাহা। তার ব্যাটেও বড় রান চাইবে দল।

মিডল অর্ডারে বিরাট সিং, অভিষেক শর্মা, প্রিয়ম গর্গের মতো তরুণরা। ওয়ার্নার বলেছেন, ‘মিডল অর্ডারে অনেক তরুণ এসেছে। চাই, ওরা প্রতিভাকে পারফরমেন্সে পরিণত করুক।’ তার বার্তা, ‘ফলের কথা না ভেবে মুক্ত মনে খেলো’।

ভুবনেশ্বর কুমার, রশিদ খানদের উপস্থিতি গভীরতা এনে দিয়েছে বোলিংয়ে। রশিদ জানিয়েছেন, কোহলির চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত। রশিদের কথায়, ‘ওকে বল করাটা উপভোগ করতে চাই। সেরা বলগুলোই ওকে করার চেষ্টা করব।’

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *