ক্যাপিটল হিলের সহিংসতায় ট্রাম্পের উসকানি নেই দাবি আইনজীবীর

আন্তর্জাতিক

ডেস্ক রিপোর্ট: মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন বিচার শুরু করার মতো যথেষ্ট ক্ষমতা সিনেটের নেই বলে মন্তব‌্য করেছেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চ কক্ষ সিনেটে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করতে গিয়ে তারা এ কথা বলেন। ট্রাম্পের অভিশংসনের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করেন তারা। ১৪ পৃষ্ঠার বিবরণীতে ক্যাপিটল হিলের সহিংসতায় ট্রাম্পের উসকানি নেই বলেও দাবি করেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা।

এ দিন ট্রাম্পের আইনজীবীরা বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাদের মক্কেলের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় এখন তার অভিশংসনের শুনানি করতে পারে না সিনেট। এমনকি তাকে আবারও প্রেসিডেন্ট পদে দাঁড়ানো থেকে বিরত রাখার এখতিয়ার সিনেটের নেই বলেও দাবি করেন তারা।’

আইনজীবীরা গত সপ্তাহে সিনেটে অনুষ্ঠিত ভোটাভুটির প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিচার শুরু না করতে সিনেটে অনুষ্ঠিত ভোটাভুটিতে ৫০ রিপাবলিকান সদস্যের ৪৫ জনই পক্ষে ভোট দিয়েছেন। উচ্চ কক্ষে ট্রাম্পকে অভিশংসিত করতে হলে দুই তৃতীয়াংশ ভোট নিশ্চিত করতে হবে। সেক্ষেত্রে ১৭ জন রিপাবলিকানেরও সমর্থন প্রয়োজন।’

গত ৬ জানুয়ারি নতুন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জয় অনুমোদনের দিনে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে তাণ্ডব চালায় বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমর্থকরা। এ ঘটনার পর ট্রাম্পকে নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ থেকে সরাতে ডেমোক্র্যাটরা প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন প্রস্তাব উত্থাপন করে।

১৩ জানুয়ারি ২৩২-১৯৭ ভোটে পাস হয় প্রস্তাবটি। চূড়ান্ত অভিশংসনের জন্য প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠানো হয়। ৯ ফেব্রুয়ারি সেখানে বিচার শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এরইমধ্যে ২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হয়। মেয়াদ শেষ হওয়া কোনো সাবেক প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভিশংসন বিচার শুরু করা যাবে কি না সে প্রশ্ন তুলেছেন তার আইনজীবীরা।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *