গঙ্গায় ভেসে আসা লাশ নিয়ে কঙ্গনার আজব দাবি

বিনোদন

ডেস্ক রিপোর্ট: সম্প্রতি ভারতের একটি ছবি নেটমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেই ছবিতে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি লাশ গঙ্গা নদীর পানিতে ভাসছে। দেশটির বিভিন্ন রাজ্য থেকে অভিযোগ উঠছে, করোনা রোগীদের মৃতদেহ পোড়ানোর জায়গা নেই বলে নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হচ্ছে।

কিন্তু বলিউডের বিতর্কিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত সে সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে নতুন যুক্তি দাঁড় করালেন। তার দাবি, ভারতের বদনাম করার জন্য এসব ভুয়া ছবি নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। এসব ছবি আসলে নাইজেরিয়ার। ভারতবর্ষে এমন কোনো ঘটনাই ঘটেনি।

সম্প্রতি ভারতের উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ ও বিহারে গঙ্গায় বেশ কিছু মৃতদেহ ভেসে আসতে দেখা যায়। পচাগলা দেহ জমা হচ্ছে নদীর পাড়ে। স্থানীয়রা বলেছেন, সেগুলো কোভিড রোগীদের দেহ। শ্মশানে পোড়ানোর জায়গা না পেয়ে নদীতে মৃতদেহ ভাসিয়ে দিচ্ছেন অনেকে।

এছাড়া বারাণসীর গঙ্গা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা জানিয়েছেন, দেশের বহু জায়গায় কোভিড-দেহ সৎকারের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না। কোথাও আবার জায়গা পেলেও মরদেহ শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত লোক নেই। ফলে রাতের অন্ধকারে মৃতদেহ গঙ্গায় ফেলে দেয়া হচ্ছে। কোনো কোনো জায়গায় গঙ্গার পাড়েই গর্ত করে দেহ পুঁতে দেয়া হচ্ছে।

এসব ছবি নেটমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগছে না। এ বিষয়ে কঙ্গনার বক্তব্য, ‘কয়েক দিন আগে এক বৃদ্ধার ছবি ঘুরছিল নেট দুনিয়ায়। দেখা যায়, তিনি অক্সিজেন মাস্ক পরে রাস্তায় বসে আছেন। সারা পৃথিবীতে সে ছবি ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। পরে জানা যায়, সে ছবি অনেক আগের। অতিমারির সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই।’

তেমন ভাবেই লাশ-ভেসে আসার ছবি নিয়ে তার দাবি, এসব নাইজেরিয়ার ছবি। এ দেশের বদনাম করার জন্য এসব করা হচ্ছে। তাই অভিনেত্রীর পরামর্শ, ‘ধর্ম দিয়ে বিভেদ করবেন না। মানবিকতাই এখন মানুষের একমাত্র ধর্ম হওয়া উচিত। একজোট হয়ে থাকা উচিত সবার।’

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *