গৌরীপুর মহিলা ডিগ্রী (অনার্স) কলেজ স্বাক্ষর জাল করে চেক জালিয়াতি অফিস সহায়ক সাময়িক বরখাস্ত

সারাবাংলা

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
ময়মনসিংহের গৌরীপুর মহিলা ডিগ্রী (অনার্স) কলেজের অধ্যক্ষ ও হিসাব রক্ষকের স্বাক্ষর জাল করে চেক জালিয়াতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অফিস সহায়ক আব্দুল্লাহ আল নোমানকে (৩০) সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত আব্দুল্লাহ আল নোমান তারাকান্দা উপজেলার বাথুয়াদি গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।
গত মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কলেজ অধ্যক্ষ মো. রুহুল আমিন। তিনি জানান, অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ার পর তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনে প্রাথমিকভাবে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
অধ্যক্ষ রুহুল আমিন আরও জানান, এর আগে অভিযুক্ত আব্দুল্লাহ আল নোমানকে শোকজ করে কলেজ গভর্নিং বডির সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।
অভিযোগকারী সংশ্লিষ্ট কলেজের অপর অফিস সহায়ক রৌশন আরা জানান, গত কিছুদিন আগে কলেজ কার্যালয়ে রক্ষিত আমার প্রভিডেন্ট ফান্ডের চেক বই গায়েব হয়ে যায়। এ বিষয়ে গত ২৪ আগস্ট গৌরীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে গৌরীপুর কৃষি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবগত করতে যাই। তখন জানতে পারি, আমার অ্যাকাউন্ট থেকে চার ধাপে ৪৬ হাজার টাকা কলেজের অধ্যক্ষ ও হিসাব রক্ষকের স্বাক্ষর জাল করে উত্তোলন করা হয়েছে। পরে বিষয়টি কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানালে ঘটনা ফাঁস হয়। তিনি আরও বলেন, এর আগেও নোমার এরকম জালিয়াতির কাজ আরো করেছে। অভিযোগ রয়েছে, এর আগে অভিযুক্ত অফিস সহায়ক আব্দুল্লাহ আল নোমান অধ্যক্ষের স্বাক্ষর জাল করে ছাত্রী ভর্তি করেছেন। সেই সঙ্গে কলেজের ল্যাপটপ চুরির সঙ্গেও জড়িত ছিলেন তিনি। ধরা পড়ার পরে তার বাবা-মা ও স্ত্রীর অনুরোধে তাকে মুচলেকা নেয়ার মধ্যে দিয়ে সর্তক করে কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে জানতে একাধিকবার আব্দুল্লাহ আল নোমানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য জানা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *