https://www.dhakaprotidin.com/wp-content/uploads/2021/01/Minis.jpg

ঘুড়ি উড়িয়ে দেশীয় ঐতিহ্য ধরে রাখতে উৎসহিত করলেন তথ্যমন্ত্রী

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ অনুষ্ঠিত হলো ঘুড়ি উৎসব। উৎসবে স্ব-শরীরে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তথ্যমন্ত্রী নিজে ঘুড়ি ওড়ান এবং আকাশ সংস্কৃতির যুগে দেশীয় ঐতিহ্য ধরে রাখতে আবহমান বাংলার সংস্কৃতি ধারণ ও লালনের ওপর সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছেন। পুরান ঢাকার ধূপখোলা মাঠে সাকরাইন উৎসবটি বৃহস্পতিবার ঢাকার স্থানীয় সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা সাংবাদিক ফোরাম এই আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে এক আলোচনা সভায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সাকরাইন উৎসব শুধু পুরান ঢাকার উৎসব নয়, বাংলাদেশের উৎসব। এটি পুরান ঢাকার ঐতিহ্য তো বটেই, পাশাপাশি আমাদের আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির অংশ। আগে শিশু-কিশোরেরা প্রায় সবাই ছোটবেলায় ঘুড়ি উড়িয়েছে। এখন যদিওবা শহরে ঘুরে বেড়ানোর সুযোগ নেই; বড় শহরগুলোয় অন্তত কমে গেছে। ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বড় শহরগুলোয় এখন আর খেলার মাঠগুলো নেই। ছাদের ওপরে গিয়ে যে ঘুড়ি ওড়াব, সেই সুযোগটা অনেক সংকুচিত হয়ে গেছে। যে কারণে আমাদের তরুণেরা–কিশোরেরা আর ঘুড়ি ওড়াতে পারে না।’

ঘুড়ি উৎসবকে সংস্কৃতির অংশ হিসেবে বর্ণনা করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের ঐতিহ্য রক্ষায় আমাদের আবহমান বাংলার সংস্কৃতি ধরে রাখতে হবে। আকাশ সংস্কৃতির হিংস্র থাবায় অনেক সংস্কৃতি এখন হুমকির মুখে। আমাদের দেশে আগে বিয়ে-গায়ে হলুদসহ নানা অনুষ্ঠানে দেশের গানই গাওয়া হতো, আমাদের ছেলেমেয়েরা আবহমান বাংলার সাজসজ্জা নিয়েই হাজির হতো। কিন্তু এখন তা বদলে যাচ্ছে। আমাদের সংস্কৃতির ওপর এই আঘাত অত্যন্ত বেদনাদায়ক। নিজেদের সংস্কৃতিকে আমাদের ধরে রাখতে হবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের সংস্কৃতিকে ধরে রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সংস্কৃতি উদ্‌যাপনে করোনা মহামারির মধ্যেও আমাদের তরুণদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। এগুলো আমাদের সংকট পাড়ি দিতে সহায়তা করে।’

বাংলাদেশের প্রাচীন উৎসবগুলোর মধ্যে সাকরাইন অন্যতম। এটি ঘুড়ি উৎসব বা পৌষসংক্রান্তি নামেও পরিচিত। পৌষ মাসের শেষে ও মাঘ মাসের প্রথম দিনে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী এই উৎসব উদ্‌যাপন করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার সূত্রাপুর এলাকায় এবং পরদিন শুক্রবার শাঁখারীবাজার এলাকায় এ উৎসব উদ্‌যাপন করা হবে।

সংগঠনের সভাপতি শামিম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেইলি অবজারভার পত্রিকার সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্যবিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, সাবেক সাংসদ সাবিনা আকতার, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহাম্মদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *