চীনে আকস্মিক বন্যায় সাড়ে ১৯ হাজার বাড়ি ধস, নিহত অন্তত ১৫

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চীনের উত্তরাঞ্চলীয় শানঝি প্রদেশে টানা বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখনও তিনজন নিখোঁজ রয়েছে। দেশের শীর্ষ কয়লা উৎপাদনকারী ওই এলাকায় বন্যার কারণে লাখ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস মঙ্গলবার জানিয়েছে, কমপক্ষে ১৭ লাখ ৬০ হাজার মানুষ বন্যার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়ে পড়েছে। বন্যার কারণে ১৯ হাজার ৫শ বাড়ি-ঘর ধসে পড়েছে।

তবে শানঝির কোন এলাকা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সে বিষয়টি পরিস্কার নয়। রাজধানী বেইজিংয়ের পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত শানঝি এলাকা এবং এর আয়তন ১ লাখ ৫৬ হাজার বর্গকিলোমিটার (৬০ হাজার বর্গ মাইল)।

বন্যার কারণে ওই এলাকায় কমপক্ষে ৭৭০ মিলিয়ন ডলার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গত জুলাই মাসে দেশটির কেন্দ্রীয় হেনান প্রদেশে রেকর্ড পরিমাণ বন্যায় তিন শতাধিক মানুষ প্রাণ হারায়। কয়েক মাসের ব্যবধানে এখন শানঝির বন্যা পরিস্থিতিও খারাপের দিকে যাচ্ছে।

বন্যার কারণে শানঝিতে কমপক্ষে ৬০টি কয়লার খনির কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ। চীনের আবহাওয়া বিষয়ক প্রশাসন স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ভারী ও দীর্ঘ বৃষ্টিপাত এবং ঝড়ের কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে। কর্তৃপক্ষ সিনহুয়া নিউজ এজেন্সিকে জানায়, এক লাখ ২০ হাজার মানুষকে তাৎক্ষণিকভাবে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং পুনর্বাসিত করা হয়েছে।

প্রাদেশিক আবহাওয়া ব্যুরো জানিয়েছে, গত ২ অক্টোবর থেকে ৭ অক্টোবরের মধ্যে গড়ে ১১৯ দশমিক ৫ মিলিমিটার (৪ দশমিক ৭ ইঞ্চি) বৃষ্টি হয়েছে। বন্যার কারণে প্রায় ১ লাখ ৯০ হাজার হেক্টর (৪ লাখ ৭০ হাজার একর) জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *