ছাতকে সংবাদকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রাম পঞ্চায়েতে নালিশ

সারাবাংলা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ছাতকে ফুরকানচক গ্রামে বিয়ের পরদিন ভোরে নিখোঁজ বর নাটকীয়ভাবে বাড়ি ফেরার ঘটনায় সংবাদ প্রকাশের জেরে চিহ্নিত এক জুয়ারী কর্তৃক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে গ্রামপঞ্চাতে শালিস বিচার ও প্রকাশিত সংবাদ প্রত্যাহারের হুমকির অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায়  শনিবার জাতীয় দৈনিক ‘ঢাকা প্রতিদিন’ ও দি ডেইলি ‘নিউজ মেইল’ পত্রিকার সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি এবং ছাতক উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক শামীম আহমদ তালুকদার বাদী হয়ে ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এতে উপজেলার খুরমা উত্তর ইউনিয়নের সেওতরপাড়া গ্রামের চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুরসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৫/৬জনকে আসামী করা হয়। অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার ফুরকানচক গ্রামে নিখোঁজ হওয়া জাবের আহমদের সংবাদ সংগ্রহ করতে যান শামীম আহমদ তালুকদার। লোকজনের সাথে কথা বলে তথ্য সংগ্রহ করার একপর্যায়ে নিখোঁজ জাবের আহমদের বসত বাড়ীর পুকুর পাড়ে তাকে পাওয়া গেছে সুর চিৎকার শুনতে পান। এরিই মধ্যে কিছু লোকজন জাবের আহমদকে ঘরে নিয়ে আসেন। তখন জাবের আহমদের কাপড় ভিজা থাকায় তার পরিবারের লোকজনকে শুকনো কাপড় পড়ানোর কথা বলে বসত ঘরের একটি কক্ষে বসেন ওই সংবাদকর্মী। কিছু সময় পর জাবের আহমদকে ওই সংবাদকর্মীর সামনে নিয়ে আসা হলে তিনি তার শারীরিক অবস্থা জানতে চাইলে জাবের আহমদ ভাল আছেন জানান। এর পর জাবের আহমদের নিকট নিখোঁজ হওয়া ও ফিরে আসার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান নিখোঁজ হওয়া ও ফিরে আসা বিষয়ে কিছুই জানিনা। কিছুক্ষন পর জাবের আহমদের বসত ঘরের কক্ষে প্রবেশ করে চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর সাংবাদিক নাম উল্লেখ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও তার অনুমতি ছাড়া সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করেন। একপর্যায়ে চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর বেশি উত্তেজিত হলে জাবের আহমদের বাড়ী থেকে সহকর্মীদের নিয়ে চলে আসেন ও সংবাদকর্মী। এর পর ‘ছাতকে নিখোঁজ সেই বর নাটকীয় ভাবে বাড়ী ফিরেছে’ শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হলে চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর ওই সংবাদকর্মীর উপর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। শুক্রবার (১৯ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলার ধারনবাজারে গ্রাম্য পঞ্চায়েত নামে উস্কানি দেওয়া জন্য ওই সংবাদকর্মীর বিরুদ্ধে বৈঠকে বসেন চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর। রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে কাকুরা গ্রাম পঞ্চায়েতের ২০/২৫ জন লোক ওই সংবাদকর্মীর বাড়ীতে যান। তারা চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর এর বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদ প্রত্যাহার ও ভবিষৎতে সংবাদ না করার জন্য বলেন। সংবাদ প্রকাশ করা হলে কাকুরা ও সেওতরপাড়া গ্রামের মধ্যে দাঙ্গাহাঙ্গা ও শান্তি শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হওয়ার আশংকা রয়েছে বলে তারা জানান। অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, ধারন বাজার এলাকায় যুব সমাজকে মদ ও জোয়ার হাত থেকে রক্ষায় এবং সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে একাধিক সংবাদ করেছেন ওই সংবাদকর্মী। চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর আক্রোশবসত হয়ে ওই সংবাদকর্মীর মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য মিথ্যা, বানোয়াট অপপ্রচার করে জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির মাধ্যমে শান্তি বিনষ্ট করার পায়তারা করছেন। নাটকীয় ভাবে নিখোঁজ হওয়ার পর জাবের আহমদের সংবাদ সংগ্রহের কাজে ওই সংবাদকর্মীকে বাঁধা ও হুমকি প্রদান এবং নাটকীয় ভাবে ফিরে আসার ঘটনায় চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর এর সম্পৃক্ততা থাকতে পারে। সঠিক তদন্তে বেরিয়ে আসবে নিখাঁজ হওয়া মূল রহস্য। চিহ্নিত জুয়ারী আব্দুল নুর ওই সংবাদকর্মী শামীম আহমদ তালুকদারের বড়ধরনের ক্ষতিসাধন করতে পারে এমন আশংকায় তিনি ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এ বিষয়ে ছাতক থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *