ধর্ষক যখন মাদরাসার সুপার

সারাবাংলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নে মাদ্রাসার সুপার অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মাদ্রাসা ঘেরাও ও ভাঙচুর করেছে। গত রবিবার (৪ অক্টোবর) ভোরে ও রাতে উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের স্বরূপদহ চকপাড়া এলাকার সিরাজুল উলুম মরিয়ম নেসা মাদ্রাসায় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, মেয়েটি ওই মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্রী। সপ্তাহের ৬ দিন সে ওই মাদ্রাসায় থাকত। প্রতি শুক্রবার সকালে তার বাবা তাকে বাড়ি নিয়ে যেতেন, আবার শনিবার সকালে পৌঁছে দিতেন মাদ্রাসায়। গত শনিবার সকালে মেয়েটির বাবা তাকে মাদ্রাসায় পৌঁছে দেন। রবিবার ভোরে ফজরের নামাজের সময় মাওলানা আবদুল কাদের মেয়েটিকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে রাত ৮টার দিকে আবারো কক্ষে ডেকে নিয়ে তাকে দ্বিতীয় দফা ধর্ষণ করেন। এ সময় সুপার বিষয়টি কাউকে না জানাতে মেয়েটিকে শাসিয়ে দেন। তবে মেয়েটি গতকাল সোমবার সকালে তার এক সহপাঠীকে বিষয়টি জানায়। সহপাঠী ঘটনাটি তার বাবাকে জানালে তা এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে বিক্ষুব্ধ জনতা মাদ্রাসায় হামলা চালায় ও ভাঙচুর করে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *