ছয়শ টাকা ঘুষ দিয়ে ভাতা জুটলো ৫শ

সারাবাংলা

উবায়দুল্লাহ রুমি, ঈশ্বরগঞ্জ থেকে :
গত শারদীয় দুর্গোৎসবের পূজা মণ্ডপের নিরাপত্তায় আনসার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনে নাম অন্তর্ভূক্ত করতে দালালের হাতে ৬শ টাকা ঘুষ দেন আব্দুল মান্নান (৪০)। গত রোববার ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসে এসে আব্দুল মান্নান নিজ স্বাক্ষরে ২ হাজার ৩শ ৫৫ টাকা উত্তোলন করেন। পরে অফিসের অদূরে আসতেই উপজেলার বড়হিত ইউনিয়নের ভাতাভোগী আনসার ভিডিপি লিডার দালাল আব্দুর রাজ্জাক (৫৫) অফিসের বড় সাহেব ও অন্যান্য খরচের কথা বলে উত্তোলনকৃত টাকা আব্দুল মান্নানের কাছ থেকে নিয়ে মান্নানকে ৫শ টাকা দিয়ে বিদায় করে দেয়। আব্দুর রাজ্জাক বিষয়টি মান্নানকে কাউকে না জানাতে বলে।
ঘটনাটি জানাজানি হলে আগামী পৌরসভা নির্বাচনে উপজেলার সৈয়দাবাদ গ্রামের আব্দুল মান্নান তার নাম তালিকা থেকে বাদ পড়ার ভয়ে তাৎক্ষনিক কাউকে জানাননি।
পরে  সোমবার আব্দুল মান্নান পিসি কমান্ডার গোলাম হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে প্রকৃত ঘটনাটি সাংবাদিকদের জানান। জানা যায়, এ বছর উপজেলার মোট ৫৭ পূজা মণ্ডপে ৫ দিন ৮০ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করে। পূজা চলাকালীন করোনা বিপর্যয়ের কারণে আনসার সদস্যরা মোবাইল দলে অন্তর্ভুক্ত হয়ে দায়িত্ব পালন করে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউনিয়ন লিডার আব্দুর রাজ্জাক ঘুষ নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, মান্নানের সঙ্গে আমার পারিবারিক লেনদেন ছিল সেই পাওনা টাকাই আমি নিয়েছি।
উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা সুশান্ত মোদক বলেন, যদি আমার নাম ভাঙিয়ে কেউ টাকা নিয়ে থাকে তা খতিয়ে দেখা হবে। আর মান্নানের কাছ থেকে রাজ্জাক যে টাকা নিয়েছে তা পাওনা টাকা বলে জানান তিনি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন বলেন, ৬শ টাকা ঘুষ দিয়ে ৫শ টাকা ভাতা পাওয়ার ঘটনা অনভিপ্রেত। বিষয়টি দেখছেন বলে জানান তিনি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *