জরাজীর্ণ ভবনে পাঠদান

সারাবাংলা

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি
লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার রাখালিয়া ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন জরাজীর্ণ ভবনেই চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। টিনশেড ভবনের ভেঙে গেছে টিন ও দেয়াল, মেঝেতে ও দেয়ালে দেখা দিয়েছে ফাটল। যেকোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরা ভয় ও শঙ্কা নিয়েই চালাচ্ছে শ্রেণিকক্ষে লেখাপড়া। সম্প্রতি বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষার্থীকে পাঠদান করা হচ্ছে। এ সময় খসে পড়তে দেখা গেছে দেয়ালের অংশ বিশেষ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী বলে, ক্লাস করতে ভয় লাগে। এটা নিয়ে আমরা খুব আতঙ্কে আছি। আমাদের মধ্যে অনেক শিক্ষার্থীর বাবা-মা তাদেরকে স্কুলে আসতে দেয় না। কিন্তু শিক্ষকরা ক্লাস করতে বলে তাই ক্লাস করি। আমাদের কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে এর দায়ভার কে নেবে। প্রধান শিক্ষক ফারুক আহমেদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১৮৯৬ সালে নির্মিত এই বিদ্যালয়টি ১৯৯৫ সালে পুনরায় নির্মাণ করা হলে বেহাল দশার কারণে সরকারের পক্ষ থেকে বার বার নতুন নতুন বিদ্যালয়ের প্রস্তাবনা এসে ফেরত যাচ্ছে যায়গা সংকীর্ণতায়। তাই বিকল্প কোনো উপায় না থাকায় শিক্ষার্থীদের নিয়ে জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই পাঠদান করা হচ্ছে। এটা নিয়ে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষক ও অভিভাবকরাও আতঙ্কে থাকে সব সময়। তাছাড়া চালার টিনগুলো চিদ্র থাকায় পানি পড়ে অফিস ও শ্রেণিকক্ষের দেয়ালের প্লাস্টার খসে পড়ছে। দেয়ালের প্রায় চারদিকে ফাটল ধরেছে। ভবনটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার পরেও বিকল্প কোনো ব্যবস্থা না থাকায় বাধ্য হয়েই শিক্ষার্থীদের নিয়ে ওই ভবনেই শঙ্কার মধ্যেই পাঠদান চালাতে হচ্ছে। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. কাউছার চৌধুরী জানান, এই বিদ্যালয়টি আমাদের ঐতিহ্য বহন করে। তাই যত দ্রুত সম্ভব বিদ্যালয়য়ের যতটুকু যায়গা রয়েছে তাতেই যেন নতুন ভবন তৈরির উদ্যোগ নেয় যথাযথ কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মহিবুর রহমান মুঠোফোনে জানান, অতীতে কয়েকবার নতুন ভবনের বরাদ্দ এসেও যায়গার সমস্যার কারনে ফেরত গিয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব পূনরায় আমরা দুই রুমের প্রস্তাব পাঠাবো। আপাতত যে শ্রেনিকক্ষ রয়েছে তাতেই ক্লাশগুলো সংকুলান করতে পারবো এবং উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার সার্ভে করার পরই নতুন ভবন নির্মানের নির্ধারিত সময় জানতে পারবো।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *