বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৮:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শ্রীপুরে র‌্যাব পরিচয়ে ১৯ লাখ টাকা ছিনতায়,গ্রেফতার-৫ সাতক্ষীরায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একজন ভারতীয় শ্রমিকসহ নিহত-৩ ঘাটাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় কৃষি কর্মকর্তাসহ নিহত ২ আহত-১ মুরাদনগরে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির অপরাধে আটক-১ সালথায় দেশীয় প্রজাতির পোনা মাছ অবমুক্তকরণ দশমিনায় শিক্ষার্থীর কীটনাশক খেয়ে আত্নহাত্যা মহিলা অধিদপ্তরের জেন্টার প্রমোটর কে নির্যাতনের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন নাজিরপুরে মামার ইজি বাইকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ভাগিনার মৃত্যু শাহজাদপুরে সমাজসেবা অধিদপ্তর কতৃত রোগীদের চেক বিতরণ প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনার শরণখোলায় ৪ হাজার নারিকেল চারা বিতরণ পাকিস্তানে বেড়েছে গাধা দেশের কারাগারে আটক ৩৬৩ বিদেশি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সকালে খালি পেটে আদার রস খাবেন যে কারণে বড় দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব মুরাদনগর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে শপথ নিলেন ড. কিশোর ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোরবানীর পশুর বর্জ্য অপসারণের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে : তাপস গেরস্তের গরুতে আস্থা ক্রেতাদের দাম নিয়ে খামারিদের কপালে চিন্তার ভাঁজ পাইকগাছায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের শ্রদ্ধা নিবেদন কাপ্তাইয়ে পুলিশের অভিযানে চোলাই মদসহ আটক-২ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা ও পানি ব্যবস্থাপনায় পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি: পরিবেশমন্ত্রী কৃষকের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তিতে কৃষি বিপনণ অধিদপ্তরের শগঋক (শস্য গুদাম ঋণ কার্যক্রম) মডেলের ভূমিকা” শীর্ষক প্রারম্ভিক জাতীয় কর্মশালা অনুষ্ঠিত  শাহজাদপুরে ৩ আসামী গ্রেফতার কেপিএম সিবিএ নির্বাচনে শ্রমিক কর্মচারী পরিষদ বিজয়ী সারাদেশে কতজন রোহিঙ্গা ভোটার, জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট ২০৪১ সালে ৮৫ লাখ মেট্রিকটন মাছ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ : আব্দুর রহমান ফেনীতে উপজেলা নির্বাচনে পরাজিত ১৮ প্রার্থী জামানত হারাচ্ছেন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে নবীগঞ্জে জমে উঠেছে পশুর হাট শেরপুরের সন্তান ওয়াকার উজ জামান সেনাপ্রধান হওয়ায় শেরপুরে আনন্দ মিছিল তুরাগে এক কিশোরীর আত্মহত্যা কাপ্তাইয়ে ৪০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পেল মাচাং ঘর

জাতীয় মসজিদে ইফতারের সময় রোজাদারের মিলনমেলা

কাজী মামুনুর রহমান (মাহিম)
শুক্রবার, ২৪ মার্চ, ২০২৩, ৭:৫৯ অপরাহ্ন

আজ রমজান মাসের প্রথম দিন। একই সঙ্গে জুমার দিন, শুক্রবার। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ইফতারের সময় দেখা যায় বিভিন্ন শ্রেণিপেশার হাজারও মানুষের উপস্থিতি। কেউ পথচারী, কেউ কর্মচারী, কেউ হকার, কেউ মার্কেটের ব্যবসায়ী, কেউ বা আবার ভিক্ষুক। সকলেই রয়েছেন একই সারিতে। সবার ইফতারও একই। কোনও শ্রেণি বৈষম্য না করে এক কাতারেই ইফতার করতে বসেছেন সবাই। এ যেন মুসলমানদের মেলবন্ধনেরই এক উদাহরণ। যেখানে নেই কোনও হিংসা, বিদ্বেষ কিংবা বৈষম্য।

হাজারও ধর্মপ্রাণ মুসল্লির উপস্থিতিতে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে আয়োজন করা হয়েছে এই ইফতারের। গতবারের মতো এবারও এই আয়োজন করেছে মুসল্লি কমিটি। এর আগে এই ইফতারের আয়োজন করা হতো ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা)র পক্ষ থেকে।

ইফতারের ৩০ মিনিট আগে থেকে জাতীয় মসজিদে প্রবেশ করতে থাকেন মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা। সময় যত গড়াতে থাকে মানুষের সংখ্যা ততই বাড়তে থাকে। শ্রেণিপেশার ভেদাভেদ ভুলে সবাই যেন এক কাতারে বসে যায় ইফতারের আগে।

জাতীয় মসজিদের মুসল্লি কমিটির সেক্রেটারি মিজানুর রহমান মানিক জানান, গত বছর প্রতিদিন ১ হাজার মানুষকে ইফতার করানো হতো। এবার আমরা প্রতিদিন ২ হাজার জনকে মানে এই রোজার মাসে ৬০ হাজার মানুষকে ইফতার করানোর উদ্যোগ নিয়েছি। আমাদের কমিটির প্রধান উপদেষ্টা সায়েম সোবহান আনভীরের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এই ইফতারের সকল ব্যয় বহন করা হচ্ছে।

তিনি জানান, আমরা এখানে সকল শ্রেণির মানুষকে নিয়ে একসঙ্গে ইফতার করি। আমাদের সবার ইফতার একই। এর মধ্যে কোনও ভিন্নতা নেই, সবাই সমান। অনেকের ইফতার করার সামর্থ নেই। অনেকে মার্কেটে ঘুরতে আসে, কেনাকাটা করতে আসে, ইফতারের সময় হয়ে গেলে হয়তো ইফতার করতে পারবে না। অনেকের যাত্রা পথে ইফতারের সময় হয়ে যায়। কেউ যেন ইফতার করা থেকে বাদ না পড়ে তাই আমাদের এই উদ্যোগ।

প্রিন্টিং প্রেসে চাকরি করা গোলাম মোস্তফা বলেন, এক বড় ভাইয়ের কাছ থেকে জানতে পেরে এখানে ইফতার করতে এসেছি। এবারই প্রথম। আমাকে আমার পরিবার দেখাশোনা করতে হয়। বাবা নেই। আমার জন্য ভালোই হলো, কিছু টাকা সেভ হয়েছে।

দুবাই প্রবাসী মো. রাজুর ভাষ্য, ঈদের ছুটিতে দেশে এসেছি। বায়তুল মোকাররম আসছিলাম বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে। ইফতারের সময় হয়ে গেছে। বাসায় গিয়ে ধরতে পারবো না। তাই আর বাসায় যাইনি, এখানে ইফতার করে নিলাম। ভালোই হয়েছে, অনেক মানুষের সঙ্গে ইফতার করা হলো।

আব্দুল মজিদ, পেশায় ভিক্ষুক। তিনি এ বছরই ঢাকায় এসেছেন। তিনি জানান, মানুষের মুখে শুনে এখানে ইফতার করতে এসেছেন। এই আয়োজন তার বেশ পছন্দ হয়েছে।

ফুটপাতের ব্যবসায়ী মো. শফিক বলেন, প্রতি বছরই মোটামুটি এখানে ইফতার করা হয়। ইফতারের সময় তো বেচাকেনা নাই, তাই এখানে এসে ইফতার করে যাই।

ইফতারের বাক্সের মধ্যে ছিল খেজুর, কলা, ছোলা, মুড়ি, বেগুনি, পেয়াজু, জিলাপি ও পানি।


এই বিভাগের আরো খবর