জয়রামকুড়া খ্রিষ্টিয়ান হাসপাতালে করোনা ঝুঁকি নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা অব্যাহত

সারাবাংলা

আব্দুল হাফিজ, ময়মনসিংহ ব্যুরো
ময়মনসিংহের সীমান্তবর্তী হালুয়াঘাট উপজেলার অভ্যন্তরে ঐতিহ্যবাহী জয়রামকুড়া খ্রিষ্টিয়ান হাসপাতাল (জিবিসি) একটি স্বাস্থ্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। ১৯৬৪ সালে পাকিস্তান আমলে এই হাসপাতালটির স্থাপন করা হয়। তৎকালীন সময়ে এই প্রতিষ্ঠানে জ্ঞানীগুনী ফরেনার ডাক্তার চীন জাপান এমিরিকার সুদূর থেকে এসে সু চিকিৎসা দিয়ে যেতেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ পর্যন্ত চিকিৎসাসেবা অব্যাহত রয়েছে। হাসপাতালে রয়েছে বহিঃবিভাগ অপারেশন থিয়েটার মল মূত্র পরীক্ষাগার, আলট্রাসনোগ্রাম সহ দুই শতাধিক শয্যা ও কেবিন রয়েছে। নিজস্ব অ্যাম্বুলেন্স, নিজস্ব জেনারেটর, রোগীদের আনা নেওয়া সহ রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। এছাড়া হাসপাতালের বাইরে ও ভেতরের পরিবেশ মনোমুগ্ধকর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে সমাহার ও স্বাস্থ্য সম্মত। এখানে হালুয়াঘাট সহ শেরপুর ময়মনসিংহ নেত্রকোনা জামালপুর ও কিশোরগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানা ও জেলা শহর থেকে রোগীরা কাতর হয়ে ছুটে আসেন এই ঐতিহ্যবাহী হাসপাতালে। শুধু তাই নয় সুদক্ষ এমবিবিএস ডাক্তার কর্তৃক রোগীর চিকিৎসা ও বিভিন্ন অপারেশন করা হয়। হাসপাতালে দুই শতাধিক স্টাফ রয়েছে। এখানে সবার আন্তরিকতা ও সহযোগিতায় ভালোবাসায়, তিল তিল করে গড়ে উঠেছে এই স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান। অদ্যবধি মহতী প্রতিষ্ঠান সুন্দরভাবে সু প্রতিষ্ঠা পাচ্ছে যাদের মাধ্যমে মিঃ তরুন দারিং, নির্বাহী পরিচালক, জয়রামকুড়া, জিবিসি হাসপাতাল, ডা. তাপস রেমা, ডা. লুসি দারিং, ফিন্যান্সিয়াল কর্মকর্তা বাবু অংকুর ভৌমিক, খোকন নন্দী সহ অনেকেই সততার সহিত কাজ করে যাচ্ছেন হাসপাতালের উন্নয়নের লক্ষ্যে। বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের প্রকোপে সারা দেশের স্বাস্থ্যসেবা ভেঙে পড়ার উপক্রম। ঠিক সেই মূহুর্তে করোনাভাইরাসকে জয় করে সংক্রমণ মোকাবেলায় জনসেবায় স্বাস্থ্যসেবায় এগিয়ে আসেন ঐতিহ্যবাহী স্বনামধন্য হাসপাতাল জিবিসি। হাসপাতালটির উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারি সহযোগিতা চেয়েছেন জয়রামকুড়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *