টি–টোয়েন্টি থেকে ছিটকে গেলেন তামিম

খেলাধুলা

তামিমের না খেলাটা বড় ধাক্কাই হবে দলের জন্য। তিনি ছাড়া দলে আর কোনো ওপেনারই যে থিতু নন! ব্যাট হাতে ভালো সময়ই যাচ্ছিল তামিমের। টেস্টে সর্বশেষ ৫ ইনিংসের চারটিতেই করেছেন ফিফটি, যার দুটি থেমেছে ৯০-এর ঘরে। প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে হলে তো কথাই নেই! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে ১১ ইনিংসে ৪২ গড়ে দুই সেঞ্চুরি ও এক ফিফটিতে ৪৬৩ রান তাঁর।

দলের সঙ্গে হারারে গেলেও পুরোপুরি ব্যথামুক্ত ছিল না তামিমের ডান হাঁটু। সেটি আরও বেড়ে যায় প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময়। তারপরও চোটটা এখনো সহনীয় পর্যায়েই আছে। বিসিবির চিকিৎসক দেবাশিস চৌধুরীর কথা, ‘তামিমের চোট এমন কিছু নয় যে অস্ত্রোপচার করাতে হবে। কিছুদিন বিশ্রাম নিলেই ঠিক হয়ে যাবে। ব্যথা কমার ওপরই নির্ভর করছে সবকিছু।’ কাজেই আপাতত বিশ্রামই একমাত্র ‘চিকিৎসা’ তামিমের। আর ব্যথা নিয়েও খেলা চালিয়ে গেলে চোটের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে এবং প্রয়োজন হতে পারে অস্ত্রোপচারের। তখন লম্বা সময়ের জন্য মাঠের বাইরে চলে যেতে হতে পারে তামিমকে।

ওয়ানডে সিরিজ খেলে দেশে ফিরে তামিম দুই–আড়াই মাসের বিশ্রামে চলে যাবেন, এখন পর্যন্ত এমনই সিদ্ধান্ত। সে ক্ষেত্রে তাঁর খেলা হবে না অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি–টোয়েন্টি সিরিজ দুটিতে। দুটি সিরিজেই হবে পাঁচটি করে টি–টোয়েন্টি ম্যাচ।

অনিশ্চয়তা শুধু তামিমকে নিয়েই। আর সে অনিশ্চয়তাও শুধু জিম্বাবুয়ে সফরেই সীমাবদ্ধ থাকছে না।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *