ডিমলায় কোরবানি এলেই বাড়ে কর্মকারের ব্যস্ততা

সারাবাংলা

ফয়সাল আহমেদ, ডিমলা থেকে:
নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বাবুর হাট বাজারে এবং বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলে কামার পল্লিতে হাতুড়ির টুংটং শব্দ আর ফাঁসফুঁস শব্দ জানান দিচ্ছে কোরবানি ঈদ আর বেশি দিন বাকি নেই। এই কারণে ছুরি, দা সহ বিভিন্ন প্রকার অস্ত্রপাতি তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কর্মকারেরা। তবে কোরবানি ছাড়া অন্য সময় ব্যস্ততা থাকে না বলে জানান তাঁরা। এদিকে কোভিড -১৯ এর প্রাদুর্ভাব, প্রয়োজনীয় উপকরণের অভাব, দেখা দিয়েছে। কয়লা ও লোহার দাম বেশি থাকায় তৈরি করা অস্ত্রপাতি সঠিক মূল্য পাচ্ছেনা কর্মকারেরা। সরেজমিনে জানা যায়, কোরবানির গরু কেনার সঙ্গে গরু জবাইয়ের প্রয়োজনিয় অস্ত্রপাতি কিনতে ডিমলা বাবুরহাট বাজারে কামার পট্টিতে তেমন কোন ভিড় নেই মানুষের। গরু-ছাগল , ভেড়া জবাই ও মাংস কাটা-কাটি এবং চামড়া ছড়ানো জন্য দা, ছুড়ি, বোটি, চাপাতি সহ বিভিন্ন অস্ত্রপাতি কেনার মতো মানুষের আগ্রহ পাওয়া যাচ্ছে না। বাবুরহাট বাজারের কামারপট্টির কর্মকার, বাবুল, দিলীপ কুমার ও ওসমান গনী বলেন আগের মতো আর ব্যবসা নেই গত ঈদে প্রতিদিন ২ থেকে ৩ হাজার টাকা বিক্রি করতাম বর্তমান প্রতিদিন ৫শত হতে ৬শত টাকা বিক্রি হচ্ছে কিভাবে যে, এবার ছেলে-মেয়েদের নিয়ে ঈদ করবো দুর্চিন্তায় আছি। অপর দিকে জানা যায় কামারের ডাঙ্গা-পাড়ার বাবুল কর্মকার বলেন- সব কিছুর মূল্য বৃদ্ধি হওয়ায় পোষাতে না পেরে অনেকেই এই পেশা ছেড়ে চলে গেছেন। আমার বাপ-দাদারা এই পেশায় কাজ করতো আমি ও করছি কিন্তু এখন আর পেট চলেনা।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *