ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শন করলেন ভুটানের রাষ্ট্রদূত রিনচেন

শিক্ষাঙ্গন

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুয়েন্টসিলসহ তিন সদস্যের প্রতিনিধিদল ড্যাফোডিল স্মার্ট সিটিতে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শনকালে তারা ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দুই দেশের শিক্ষা, অর্থনীতি, সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সৌহার্দ্যপূর্ণ বৈঠক করেছেন। রাষ্ট্রদূত দলের অপর দুই সদস্য হলেন ঢাকার রয়েল ভুটানিজ দূতাবাসে নিযুক্ত ভুটানের মন্ত্রী কর্নেল শা রাই এবং রয়েল ভুটানিজ দূতাবাসের সেকেন্ড সেক্রেটারি কেজাং ওয়াংচুক।
বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর,২০২১) ভুটান রাষ্ট্রদূতের দল ক্যাম্পাসে এলে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার তাঁদেরকে আন্তরিকভাবে বরণ করেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক, ইন্টারন্যাশনাল এফেয়ার্সের পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ ফখরে হোসেন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, পরিচালক ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
বৈঠককালে রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুয়েন্টসিল বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সঙ্গে শিক্ষা, ব্যবসা, সংস্কৃতি বিনিময়সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভুটানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করবে। তিনি শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্যোক্তা হওয়ার মনোভাব গড়ে তোলার উপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, উদ্ভাবনী শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্টার্ট আপ ও ভেঞ্চার প্রকল্প চালু করার ব্যাপারে ভুটান সরকার খুবই আগ্রহী। এর মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রী অর্জন সহজ হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, আমরা গত বছর বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অনুরোধ করেছিলাম ভুটানের শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা করতে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় সে আহ্বানে সাড়া দেয়ায় কর্তৃপক্ষকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই।
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার বলেন, ২০২২ সাল থেকে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভুটানের তরুণ শিক্ষার্থীদের জন্য শতভাগ বৃত্তি ও আংশিক বৃত্তির ব্যবস্থা থাকবে। এসময় তিনি ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার আন্তর্জাতিক মান, বিভিন্ন র‌্যাংকিংয়ে ড্যাফোডিলের অবস্থান, বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক মানের হোস্টেল সুবিধাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা তুলে ধরেন এবং ভুটানি শিক্ষার্থীদেরকে ভর্তির জন্য আহ্বান জানান।
বৈঠক শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নলেজ ভ্যালি, গলফ গার্ডেন, বনমায়া, ইনোভেশন ল্যাব, আনিসুল হক স্টাডি সেন্টার, স্বাধীনতা মিলনায়তনসহ পুরো ক্যাম্পাস ঘুরে দেখেন এবং শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপভোগ করেন ভুটান রাষ্ট্রদূতের দল। এর মাধ্যমে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সঙ্গে ভুটানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সম্পর্ক দৃঢ় হবে বলে কর্তৃপক্ষ আশা করেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *