ড্র করেও সেরা আট থেকে বার্সার বিদায়

খেলাধুলা

রিপোর্ট: হজম করা যাবে না কোনো গোল, প্রতিপক্ষের জালে দিতে হবে অন্তত ৪টি- এমন অসম্ভবপ্রায় সমীকরণ মাথায় নিয়েই ফ্রান্সে গিয়েছিল স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা। মাঠে নেমে এক গোল হজম করে ফেলায় সমীকরণ বেড়ে হয় পাঁচ গোলের। তা আর মেলানো সম্ভব হয়নি, বিদায় নিতে হয়েছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের (ইউসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে।

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর (পিএসজি) বিপক্ষে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচে নিজেদের ঘরের মাঠে ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে হেরে গিয়েছিল বার্সেলোনা। ফলে দ্বিতীয় লেগে প্রতিপক্ষের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করেও ন্যুনতম লাভ হয়নি। দুই লেগ মিলে ৫-২ গোলের অগ্রগামিতায় বার্সাকে বিদায় করে সেরা আটের টিকিট নিশ্চিত করেছে ফ্রান্সের চ্যাম্পিয়নরা।

নিজেদের ঘরের মাঠে ৪ গোল হজমের পর দ্বিতীয় লেগে প্রতিপক্ষের মাঠে এগুলো শোধ করে পরের রাউন্ডে যাওয়ার নজির খুব একটা নেই চ্যাম্পিয়নস লিগে। সামনে প্রতিপক্ষ হিসেবে উজ্জীবিত পিএসজি হওয়ায় চ্যালেঞ্জটা আরও কঠিন ছিল রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যদের জন্য।

সেই চ্যালেঞ্জে অবশ্য ভেঙে পড়েননি লিওনেল মেসি, অ্যান্তনিও গ্রিজম্যানরা। বরং পিএসজিকে তাদের মাঠেই কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছে। পুরো ম্যাচে আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে বার্সেলোনা। নির্ধারিত সময়ের প্রায় তিন-চতুর্থাংশ সময় বলের দখল ছিল বার্সেলোনার পায়ে। লক্ষ্য বরাবর দশটি শটও নিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। কিন্তু সফলতা মিলেছে মাত্র একবার।

ম্যাচের ত্রিশ মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে গোল করে বার্সেলোনার সমীকরণ আরও বেশি কঠিন করে দেন কাইলিয়ান এমবাপে। ডি-বক্সের মধ্যে মাউরো ইকার্দিকে ফাউল করেছিলেন ক্লেমেন্ত লংলে। ফলে পেনাল্টি পায় পিএসজি। যা থেকে দুই লেগ মিলে ব্যবধান ৫-১ করে দেন এমবাপে।

অবশ্য এর আগে ম্যাচের ৩৭ মিনিটের সময় দুর্দান্ত এক গোল করেন মেসি। পেদ্রির ছোট করে বাড়ানো পাস ধরে খানিক জায়গা পেয়েই বুলেট গতির শটে পিএসজির রক্ষণকে ফাঁকি দেন মেসি। পুরো ম্যাচে এই একবারই উৎসবের উপলক্ষ্য পেয়েছে বার্সেলোনা। বাকি পুরোটা ম্যাচজুড়েই ছিলো হতাশার বেদনাকাব্য।

ম্যাচের প্রায় শুরু থেকেই বল দখলের লড়াইয়ে অনেক এগিয়ে ছিল বার্সেলোনা। কিন্তু আক্রমণে বিশেষ করে ফিনিশিংয়ে সে অর্থে মুন্সীয়ানা দেখাতে পারেনি কাতালানরা। প্রথমার্ধে পেনাল্টিসহ অন্তত তিনটি সুযোগ হারায় তারা। দ্বিতীয়ার্ধেও বজায় থাকে একই ধারা। ফলে মেলেনি জয়, রচিত হয়নি নতুন কোনো ইতিহাস।

প্রথম লেগে ৪-১ গোলে বিশাল জয়ের পর দ্বিতীয়ার্ধের ১-১ গোলের ড্রয়ে দুই লেগ মিলে ৫-২ গোলে এগিয়ে থাকায় কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেছে পিএসজি। দিনের অন্য ম্যাচে আর বি লাইপজিগকে ২-০ গোলে হারিয়ে ৪-০ গোলের অগ্রগামিতায় সেরা আটে পৌঁছে গেছে ইংলিশ জায়ান্ট ক্লাব লিভারপুল।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *