ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ

সারাবাংলা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সাইনবোর্ড হইতে কাঁচপুর সেতু পর্যন্ত সকাল ৬টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত হেফাজতে ইসলাম ও ছাত্রশিবির রোড অবরোধ করে রাখে টায়ার জ্বালিয়ে লাঠিসোটা ইট পাটকেল নিয়ে। ফলে সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে এবং অফিস আদালত ও দোকানপাট খোলেনি। এদিকে  রোববার দুপুর ১২টার দিকে একটি বিশাল বড় মিছিল বের করে হেফাজতে ইসলাম ও ছাত্রশিবির কর্মীরা। হেফাজত ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা রাজপথ ত্যাগ করবে না প্রয়োজনে তারা রক্তের বন্যা বইয়ে দেবে। তারপর সাইনবোর্ড হইতে সানারপাড় আসলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয় দফায় দফায়।ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল লাঠিসোটা নিয়ে পুলিশের উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে হেফাজতে ইসলাম ও জামাত শিবিরের কর্মীরা। পরে পুলিশ রাবার বুলেট লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সাধারণ জনগণ গণমাধ্যমকে জানান, যদি সরকার এই মুহূর্তে কোন পদক্ষেপ না নেয় তাহলে পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যেতে পারে। সাধারণ জনগণ মারামারি চায়না দাঙ্গা ফ্যাসাদ চায়না চায় একটু শান্তি। মারামারি করে কখনো দেশে শান্তি ফিরে আসতে পারে না বরং দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সাধারণ জনগণ আরো বলেন, যারা দেশকে ভালোবাসেন তারা কখনো দেশের ক্ষতি করতে পারে না। হেফাজতে ইসলাম ও জামাত-শিবিরের ভাইয়েরা আপনারা যদি দেশকে ভালোবাসেন তাহলে মারামারি দাঙ্গা ফ্যাসাদ কেন করছেন? আর দশ-বারো বছরের শিশুদের দিয়ে কেন রাস্তায় নামিয়ে হাতে লাঠি ধরিয়ে দিচ্ছেন। তাদের কি এখনো রাজনীতি করার বয়স হয়েছে। সাধারণ জনগণের দাবি, মহামান্য জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে যারা উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড করছে তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। হতাহতের ঘটনা এখনো পর্যন্ত পাওয়া যায়নি পরিস্থিতি থমথমে অবস্থা রাস্তায় কোনো গাড়ি চলতে দেখা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *