তুষারধসে আটকে পড়া প্রাণের সন্ধানে উদ্ধারকারী দল, নিহত বেড়ে ৩২

আন্তর্জাতিক

ডেস্ক রিপোর্ট: ভারতের উত্তরাখণ্ডে তুষার ধসে তীব্র জলোচ্ছ্বাসে ঋষিগঙ্গা বিদ্যুৎ প্রকল্প ভেসে গেছে। ভয়াবহ তুষারধসের ঘটনার তিনদিনে ৩২ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এখনো দেড় শতাধিক লোক নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজদের মধ্যে এখনো জীবিতদের উদ্ধারের আশা করা হচ্ছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, বিদ্যুৎ প্রকল্পের আড়াই কিলোমিটারের টানেল কাদা পাথরে অবরুদ্ধ। ভেঙে গিয়েছে ৫টি সেতু। কার্যত, ১৩ টি গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছে সেনা ও নৌবাহিনী।

রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দল জানিয়েছে, ৩০ জন শ্রমিক টানেলে আটকে থাকতে পারেন। তপোবন পাওয়ার প্রজেক্টের কাজ করছিলেন ওই কর্মীরা। সেখানে ড্রোনের সাহায্যে নজরদারির কাজ চলছে। খুঁজে দেখা হচ্ছে আর কোথাও প্রাণের সম্ভাবনা রয়েছে কী না।

উদ্ধারকারী দলের সদস্য মেজর রাজীব চৎপল জানিয়েছেন, আটকে থাকা মানুষকে উদ্ধার করতে জয়েন্ট অপারেশন চলছে। এনডিআরএফ, এসডিআরএফ ও ভারতীয় সেনা একসঙ্গে মিলে কাজ করছে।

দুভাবে চলছে উদ্ধারকাজ। একটি দল টানেলের মধ্যে থেকে কাদামাটি বাইরে বের করে আনার কাজ করছে। আর যেখানে কাদামাটি উপর পর্যন্ত ভর্তি হয়ে রয়েছে সেখানে সেনাবাহিনীর সদস্যরা হুলের সাহায্যে দড়ি বেয়ে নেমে মাটি বের করে উদ্ধার কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে।

সেনার তরফে জানানো হয়েছে, যতক্ষণ পর্যন্ত না আটকে থাকা কর্মীদের উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে। উদ্ধার কাজ চলতে থাকবে।

হেলিকপ্টারে এলাকা পরিদর্শন করছেন মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত। মুখ্যমন্ত্রী ত্রিভেন্দ্র সিং রাওয়াত জানিয়েছেন, ডিআরডিও, ইসরোর সহায়তায় ধ্বংসস্থল খুঁটিয়ে দেখা হচ্ছে, যাতে উদ্ধারকাজে আরও দ্রুততা আসে। এই মুহূর্তে উদ্ধারকারীদের মূল ফোকাসে রয়েছে তপোবন টানেল।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *