ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় জড়িত বাসচালক গ্রেপ্তার

জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট : ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশাল উপজেলার চেলেরঘাট এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা ড্রাম ট্রাকের সঙ্গে বাসের ধাক্কায় ৭ জন বাসযাত্রী নিহতের ঘটনায় পলাতক ওই বাস চালককে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। সোমবার (১৮ অক্টোবর) সিআইডি হেডকোয়ার্টারে সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সোমবার সকালে নরসিংদী জেলার মনোহরদী থানার গোতাশিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্যাপার এম.এ রহিম (ঢাকা মেট্রো ব-১১-০১৪৮) বাসের চালক মো. আনসার আলীকে গ্রেফতার করে সিআইডি। তার বাড়ি শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায়। বাবার নাম মৃত লাল মামুন।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার বাসচালক সিআইডিকে জানান, তার বাসটি গত ১৬ অক্টোবর ঢাকার মহাখালী টার্মিনাল থেকে সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে ৪২ জন যাত্রী নিয়ে শেরপুর এর ঝিনাইগাতী বাসস্ট্যান্ডের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। একই সময়ে একই স্থান হতে সৌখিন পরিবহনের একটি বাস প্রায় ৫০ জন যাত্রী নিয়ে ময়মননসিংহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। প্রায় সময়ই তারা প্রতিযোগিতা করে গাড়ি চালাতে থাকে। বাস দুটি ত্রিশাল থানাধীন চেলেরঘাট এলাকায় পৌঁছালে সৌখিন পরিবহন ও স্যাপার এম.এ রহিম বাসের মধ্যে প্রতিযোগিতার এক পর্যায়ে স্যাপার এম.এ রহিম পরিবহনের বাসটি দ্রুত বেপরোয়া গতিতে রাস্তায় পার্কিংরত বিকল ড্রাম্প ট্রাকটিতে সজোরে ধাক্কা দেয়। মুহূর্তেই বাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়।

সিআইডি জানায়, এসময় ঘটনাস্থলেই ৫ জনের মৃত্যু হয়। আহত আরও ১০ থেকে ১২ জনকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ২ জনসহ মোট ৭ জন মারা যান। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই ঘাতক বাসচালক আনসার আলী দ্রুত পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ২ জন শিশু, ২ জন নারী ও ৩ জন পুরুষ রয়েছেন। এরমধ্যে একই পরিবারের ৪ জন। তারা হলেন- আজমল মণ্ডল ওরফে ফজু (৩৫), তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (২৫), ছেলে আমানুল্লাহ (৫) ও মেয়ে মারিয়া আক্তার আজমিনা (৮)। এছাড়া ফজলুল হকের শ্বশুর নজরুল ইসলাম (৫৫)। অন্য দুজন হলেন মো. সিরাজ (৩৫) ও হেলেনা (৪০)।

এ ঘটনায় গত ১৭ অক্টোবর নিহতদের পক্ষে মো. তাজ উদ্দিন (৪৮) নামের এক ব্যক্তি ত্রিশাল থানায় সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ অনুযায়ী ১০/১৫/৯৮/১০৫ ধারায় একটি মামলা করেন। মামলা নং- ১১/৩০৯। তিনি ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার মো. আ. সাত্তারের মণ্ডলের ছেলে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *