দুই দিন পর মিরাজের সাময়িক মুক্তি

খেলাধুলা

ডেস্ক রিপোর্ট: নিউ জিল্যান্ড সফরের শুরুতে কঠিন সময় পার করছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরা। তামিম-মুশফিকরা এখন আছেন আইসোলেশনে। ঘরবন্দী জীবনে অতিষ্ঠ হয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ বলেই দিলেন, তিনি জেল খানায় আছেন। তবে প্রথম দিকে কষ্ট হলেও ধীরে ধীরে মানিয়ে নিচ্ছেন পরিবেশের সঙ্গে।

রোববার নিউ জিল্যান্ড থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় মিরাজ বলেন ‘আমি মনে করি যে, তিনদিন যে ঘরের ভেতর বন্দী ছিলাম, আমার নিজের কাছে মনে হয়েছে যে জেলখানায় আছি। কিন্তু যখন বাইরে বেরিয়ে আসলাম, আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিলাম, তখন একটু ভালো মনে হয়েছে।’

তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলতে গত ২৩ তারিখ বিকেলে নিউ জিল্যান্ড যান তামিমরা। ২৪ তারিখ নিউ জিল্যান্ড স্থানীয় সময় দুপুরে পৌঁছানোর পর টানা দুই দিন রুমেই কাটান। করোনা টেস্টে নেগেটিভ আসার পর আধঘণ্টার জন্য বের হতে পারেন তারা। তাও নিরাপদ দূরত্বে থেকে ছোট-ছোট গ্রুপে। এভাবে কাটাতে হবে আরও দুই দিন।

এরপর ছোট-ছোট গ্রুপে ভাগ হয়ে অনুশীলনে ফিরতে পারবেন। ১৪ দিন পর করোনা টেস্টে পুনরায় নেগেটিভ আসলে ফিরতে পারবেন দলীয় অনুশীলনে। তখন আর কোনো বিধি-নিষেধ থাকবে না। চলা ফেরা করতে পারবেন স্বাভাবিকভাবে।

প্রথম দিকে কেমন কাটছে? মিরাজ বলেন ‘এই প্রথম হোটেলের ভেতর এরকম পাঁচটা দিন কাটিয়েছি। প্রথম দিকে সময় কাটছিল না। প্রথম তিনদিন তো কারও সাথে দেখাসাক্ষাৎ হয়নি। ফোনে-ফোনে কথা হয়েছে সবার সাথে, ভিডিও কলে কথা হয়েছে রুম টু রুম। প্রথমদিকে বোরিং লাগছিল, সময় কাটছিল না। এখন যেহেতু পাঁচদিন কেটে গেছে, আশা করি আরও তিনদিন কেটে যাবে।‘
প্রতিদিন ত্রিশ মিনিটের জন্য বাইরে বের হতে পারেন মিরাজরা। এটাতেই এখন স্বস্তি খুঁজছেন এই ডানহাতি স্পিনার। ‘দেখেন তিন-চারদিন রুমে কাটানো, এটা আসলে আমাদের জন্য আনকমফোর্টেবল। এই যে ত্রিশ মিনিটের জন্য বাইরে আসতে দেয়, এটা ভালো লাগে যখন রুমে ফিরে যাই’-যোগ করেন মিরাজ।

২৮ মার্চ প্রথম টি-টোয়েন্টি হ্যামিল্টনে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল। ম্যাচগুলো হবে নেপিয়ার ও অকল্যান্ডে। প্রথম টি-টোয়েন্টি শুরু বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায়। দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টি শুরু দুপুর ১২টায়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *