দুদকের মামলায় আরও ১ মাস জামিনের মেয়াদ বাড়লো আউয়াল দম্পতির

আইন আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল এবং তার স্ত্রী লায়লা পারভীনের জামিনের মেয়াদ আরও এক মাস বৃদ্ধি করা হয়েছে।

সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় পিরোজপুর বিশেষ জজ আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে পুনরায় জামিনের আবেদন করার পর বিচারক মোহাঃ মহিদুজ্জামান আউয়াল দম্পতিকে পরবর্তী এক মাসের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। এসময়, পিরোজপুর শহরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য আদালত প্রাঙ্গণ ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়।

এর আগে, দুদকের দায়ের করা তিনটি মামলায় গত ৩ মার্চ আউয়াল দম্পতি পিরোজপুর বিশেষ জজ আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবীদের মাধ্যমে জামিন আবেদন করেন। এসময় শুনানি শেষে বিচারক তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর ওই দিন বিকেলে বিচারক আব্দুল মান্নানকে তাৎক্ষণিকভাবে অন্যত্র বদলি করা হয়। পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত বিচারক আউয়াল দম্পতিকে দুই মাসের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। এ ঘটনায় দেশ-বিদেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে আদালত বন্ধ থাকায় দীর্ঘদিন পর আজ সোমবার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন আউয়াল দম্পতি। তার আগে, হাইকোর্ট থেকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন পেয়েছিলেন আউয়াল দম্পতি।

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় সরকারি জমি দখল করে ভবন তুলে ভূয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুত অফিসের কাছে ভাড়া দেওয়া, নেছারাবাদ উপজেলায় সরকারি জমি দখল করে ভবন নির্মাণ করা এবং পিরোজপুর শহরে অবৈধভাবে একটি পুকুর দখল করার অভিযোগে আউয়ালের বিরুদ্ধে গত ৩০ ডিসেম্বর পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন। এর একটিতে তার স্ত্রী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লায়লা পারভীনকেও আসামি করা হয়।

২০০৮ ও ২০১৪ সালে পর পর দুইবার পিরোজপুর-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন আউয়াল।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *