দূরপাল্লার বাস বন্ধ, কাউন্টারে যাত্রীদের ভির

জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট: করোনাভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধে ও ঢাকাকে সুরক্ষিত রাখতে আশপাশের ৭ জেলায় লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এ অবস্থায় ঢাকা থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যাবে না, ঢাকায়ও কোনো বাস প্রবেশ করবে না বলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ- বিআরটিএ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২১ জুন) বিকেলে সরকারের পক্ষ থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হলেও মঙ্গলবার (২২ জুন) সকালে গন্তব্যে যেতে বাস কাউন্টারে এসে ভিড় করছেন অনেকে।

সকাল ৭টায় রাজধানীর নর্দ্দা বাসস্ট্যান্ডে খোলা থাকা একটি বাস কাউন্টারে দেখা যায় গন্তব্যে যেতে বাসের জন্য মানুষজন আসছেন। এ সময় কাউন্টার থেকে বাস নেই বলে জানানো হয়।

রফিক নামের এক ব্যক্তি জরুরি কাজে যাবেন ফেনীর মহিপাল। কাউন্টারে এসে জানলেন বাস বন্ধ। কী কারণে বাস বন্ধ তাও তিনি জানেন না। পরে কাউন্টার থেকে কারণ জানানো হয়।

সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে গন্তব্যে যেতে বাস কাউন্টারে এসেছেন দুই নারী। বাস বন্ধ থাকায় কীভাবে যাবেন উল্টো কাউন্টার ম্যানেজারকে প্রশ্ন করেন।

শিক্ষার্থী সাইফুল্লাহ যাবেন কুমিল্লা। বাসের আশায় অনেক সময় কাউন্টারে বসে থেকে হতাশ হয়ে বের হয়ে গেলেন। কীভাবে যাবেন জানতে চাইলে বলেন, ভেঙে ভেঙে যেতে হবে। বাড়ি যাওয়া জরুরি।

কাউন্টার ম্যানেজার রাব্বি বলেন, সকাল থেকে অনেকেই গন্তব্যে যাওয়ার জন্য কাউন্টারে এসে বাসের খোঁজ নিচ্ছেন। আমরাতো সরকারের নির্দেশে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছি। এ সময় ফোনে অনেককে বাস চলাচল করছে কি না সে খোঁজ নিতেও শোনা যায়।

এদিকে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধের ঘোষণা থাকলেও সকালে সৌদিয়া, এস আলম, সরকার ট্রাভেলস, শ্যামলী পরিবহনসহ আরো কয়েকটি পরিবহনের বাস চলাচল করতে দেখা যায়।

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশের সাত জেলায় লকডাউন শুরু হয়েছে। আজ সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া এ লকডাউন আগামী ৩০ জুন (বুধবার) রাত ১২টা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। যে সাত জেলায় লকডাউন দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো- মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, রাজবাড়ী, মাদারীপুর ও গোপালগঞ্জ।

সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী, লকডাউনের সময়ে ঢাকা থেকে ছাড়বে না দূরপাল্লার কোনো বাস, আসবেও না; জেলাগুলোর ওপর দিয়ে ট্রেন চলবে কিন্তু সেখানকার রেলস্টেশন থেকে যাত্রী তোলা ও নামানো হবে না; যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে; পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ থাকবে; ফেরিতে শুধু মালবাহী গাড়ি পারাপার হতে পারবে। তবে লকডাউনের মধ্যে তৈরি পোশাক কারখানা চালু থাকবে।

সোমবার (২১ জুন) ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েতউল্ল্যাহ সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘লকডাউন শুরু হলে ঢাকা থেকে সারাদেশে যাত্রীবাহী দূরপাল্লার যান চলাচল বন্ধ থাকবে। বিআরটিএ ও মহাসড়ক পুলিশের কাছ থেকে আমরা সন্ধ্যায় এ বিষয়ে নির্দেশনা জেনেছি। পরিবহন মালিকদেরও এ নির্দেশনা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *