দেশপ্রেম-সততা ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী

লিড ১

ডেস্ক রিপোর্ট: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের উন্নয়নে দেশপ্রেম, সততা, নিষ্ঠা ও আনুগত্য আবশ্যক। বুধবার ( ১৭ নভেম্বর) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে আনীত এক শোকপ্রস্তাবের ওপর আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের টানা চারবারের সংসদ সদস্য, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের মৃত্যুতে এ শোকপ্রস্তাব আনা হয়।

মো. একাব্বর হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সংসদে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের উন্নয়ন করতে হলে নিষ্ঠাবান হতে হবে। দেশপ্রেম থাকতে হবে। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সততা নিয়ে কাজ করলেই উন্নয়ন হতে পারে।’

সততা ছাড়া যে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়, সেটা ’৭৫ এর পর ২১টি বছর জাতি প্রত্যক্ষ করেছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকে তার সরকারের টানা ১২ বছরের শাসনে দেশের যে উন্নতি, সেটা সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ না করলে কোনোভাবেই সম্ভব ছিল না।

শেখ হাসিনা বলেন, নিজের দেশের অর্থ অন্যের হাতে তুলে দিয়ে সেই অর্থ থেকে আবার কমিশন গ্রহণের নজিরও অতীতে দেশে ছিল। কাজেই সেই ধরনের নিষ্ঠাবান নেতৃত্ব যে দেশের জন্য কতটা প্রয়োজন, সেটা তিনি মর্মে মর্মে উপলব্ধি করেন বলেও উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, তার (একাব্বর) মৃত্যুতে বাংলাদেশের জন্য এবং আওয়ামী লীগের রাজনীতির জন্য অনেক বড় একটা ক্ষতি। কেননা একাব্বরের মতো একজন নিষ্ঠাবান ও সৎ রাজনীতিবিদকে আমরা হারালাম।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার কোভিড-১৯ এর মতো বিশ্বব্যাপী চলমান দুর্যোগ মোকাবেলা করে দেশের মানুষের জীবনযাত্রা সচল রাখতে সক্ষম হয়েছে। যেটা বিশ্বব্যাপী সকলে মনে করে এবং বলে। যদিও বিশ্বের অনেক উন্নত দেশে এখন খাদ্যাভাব রয়েছে।

তিনি বলেন, সম্প্রতি তিনি লন্ডন সফরকালেও দেখেছেন সুপার মার্কেটে অনেক জিনিস পাওয়া যাচ্ছে না, সাপ্লাই নেই। অথচ ছোট্ট ভূখণ্ডের এবং অধিক জনসংখ্যার এই দেশে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত খাদ্যের হাহাকার নেই।

অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সরকারি দলের সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, আবদুস সোবহান মিয়া, বেনজির আহমেদ, আনোয়ারুল আবেদীন খান, বিরোধী দলের চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা প্রমুখ।

পরে মরহুম মো. একাব্বর হোসেনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে তার আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন সরকারি দলের সদস্য এনামুল হক।

এরপরই সংসদের রেওয়াজ অনুযায়ী দিনের সব কার্যসূচি স্থগিত করে বৈঠক মুলতবি করা হয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *