দেশে এসে পৌঁছেছে ভারত থেকে আমদানি করা চাল

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : পার্শ্ববর্তী বন্ধু দেশ ভারত থেকে আমদানি করা ১ লাখ ১১হাজার ৫২০মেট্রিক টন চাল দেশে এসে পৌঁছেছে।

বুধবার (৩ ফ্রেবুয়ারি) খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত ভোমরা, দর্শনা, বেনাপোল, সোনা মসজিদ, হিলি, বুড়িমারি, বাংলাবান্দা, শেওলা সহ দেশের বিভিন্ন স্থল বন্দর দিয়ে বেসরকারিভাবে মোট ৫৬ হাজার ৩৯১ মেট্রিক টন চাল দেশে পৌঁছেছে। এছাড়া সরকারিভাবে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতির আওতায় ৫৫ হাজার ১২৯ মেট্রিকটন টন চাল দেশে পৌঁছেছে।

বেসরকারি পর্যায়ে চাল আমদানির জন্য ৩ জানুয়ারি ১০ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন, ৪ জানুয়ারি ১২ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১ লাখ ৬০হাজার মেট্রিক টন এবং ৫ জানুয়ারি ৭ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৬৫ হাজার মেট্রিক টন, ৬ জানুয়ারি ৪৯ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১ লাখ ৭৪ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন, ১০ জানুয়ারি ৬৪ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে আরো ১ লাখ ৭১ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন বেসরকারি পর্যায়ে আমদানির অনুমতি দিতে খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়।
এছাড়া দ্বিতীয় ধাপে ১০ জানুয়ারি ৭২ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে আরও ১ লাখ ৪১ হাজার মেট্রিক টন চাল, ১৩ জানুয়ারি ৪৩ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১ লাখ ৬ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন চাল এবং ১৭ জানুয়ারি ৬৩ প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৯১ হাজার মেট্রিক টন চাল আমদানি করতে মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়।

মোট ৩২০টি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১০ লাখ ১৪ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন চাল বেসরকারি পর্যায়ে আমদানির অনুমতি দিতে খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়।

বরাদ্দ পত্র ইস্যুর ৭ দিনের মধ্যে বরাদ্দপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানকে এল.সি খুলে এ সংক্রান্ত তথ্য খাদ্য মন্ত্রণালয়কে জানাতে বলা হয়। ৫ হাজার মেট্রিক টন বরাদ্দপ্রাপ্ত ব্যবসায়ীদের এল.সি খোলার ১০ দিনের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং ২০ দিনের মধ্যে সব চাল বাংলাদেশে বাজারজাত করতে হবে বলে খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে অফিস আদেশ জারি করা হয়।

এছাড়া ১০-১৫ হাজার মেট্রিক টন বরাদ্দপ্রাপ্ত ব্যবসায়ীদের এল.সি খোলার ১৫ দিনের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং ৩০ দিনের মধ্যে সব চাল বাজারজাত করতে হবে।

বেসরকারি পর্যায়ে চালের আমদানি শুল্ক ৬২ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ নির্ধারণ করে সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় খাদ্য মন্ত্রণালয় ২৭ ডিসেম্বর বেসরকারিভাবে চাল আমদানি জন্য বৈধ আমদানিকারকদের প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্রসহ ১০ জানুয়ারি মধ্যে খাদ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে বলা হয়।

দেশবিদেশের গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *