দৌলতদিয়া ফেরিঘাট অনেকটাই ফাঁকা

সারাবাংলা

রনি মন্ডল, গোয়ালন্দ থেকে
রাজধানী ঢাকায় যাওয়ার অন্যতম যোগাযোগ মাধ্যম রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট  বুধবার সকাল থেকেই অনেকটা ফাঁকা পড়ে আছে। বিগত কয়েকদিনের মত নেই কোনো যানবাহনের দীর্ঘ সারি। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে যেসকল যানবাহন আসছে তা লাইনে দাঁড়িয়ে না থেকেই ফেরিতে উঠতে পারছে। বিপরিত পাশে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা ফেরিতেও অধিকাংশ পণ্যবাহী ও গণপরিবহন রয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিনের তুলনায় নদীতে জল ও স্রোত কমে যাওয়ায় ফেরিগুলো ঘাটে ভিড়তে সময় কম লাগছে। আগে যেখানে ফেরিগুলোকে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া আসতে ১ ঘণ্টা সময় লাগতো সেখানে এখন মাত্র ৩০-৪০ মিনিট সময় লাগছে। আগে তীব্র স্রোতের কারণে পন্টুনের একটি পকেট দিয়েই যানবাহন ফেরিতে উঠা নামা করতো আর এখন উভয় পকেট দিয়েই যানবাহন ফেরিতে উঠতে পারছে। ফলে একাধিক ফেরি একসঙ্গে একই ঘাটে লোড আনলোড করতে পারছে।
গতকাল বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘাটে অবস্থান করে দেখা যায়, দৌলতদিয়ার প্রতিটি ঘাটেই ফেরি রয়েছে। ফেরিতে ওঠার জন্য লাইনে অপেক্ষায় থাকা স্বল্প সংখ্যক পণ্যবাহী গাড়ির চালক সুবিধা মতো ঘাটে গিয়ে ভিড়ছে। পাটুরিয়া থেকে ছেড়ে আসা ফেরি দৌলতদিয়ায় আনলোডের পর যানবাহন নিয়ে আবার ফিরে যাচ্ছে।
যশোর থেকে ছেড়ে আসা ট্রাকের চালক ইব্রাহিম মোল্লা বলেন, আমি যশোর থেকে আজ সকালেই ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেরে আসি। কিন্তু অবাক হয়ে যাই যখন দেখি পারের অপেক্ষায় কোন গাড়ির লাইন নাই। এর আগে এমন কখনও দেখি নাই। আজ (গতকাল বুধবার) ঘাটে আসা মাত্রই ফেরিতে উঠতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ট্রাফিক সুপারিন্টেন্ডেন্ট ফারুকুল ইসলাম বলেন, নদীতে স্রোত কম ও পর্যাপ্ত ফেরি থাকায় পারাপারে সময় কম লাগছে। যানবাহনগুলো ঘাটে আসা মাত্রই ফেরি পাওয়ায় মহাসড়কে যানবাহনের লাইন নাই। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ছোটবড় মিলিয়ে মোট ১৮টি ফেরী চলাচল করছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *