ধামসোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উজ্জ্বল নক্ষত্র

সারাবাংলা

খোরশেদ আলম, আশুলিয়া থেকে:
আশুলিয়া থানা দীন ধামসোনা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ভাদাইল এলাকার কৃতি সন্তান যিনি তরুণ বয়স থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি আর কেউ নয় হাজী মোঃ মতিউর রহমান মতিন।
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করাই হচ্ছে শেখ হাসিনার মূল উদ্দেশ্য: করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক বিপর্যয় বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশকেও বহুমুখী চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে।
ধামসোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. মতিউর রহমান মতিন বলেন, এই করোনার মধ্যেও বাংলাদেশের জিডিপি গ্রোথ দেখে শুধু বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্বের মানুষ এখন বাংলাদেশের এই উন্নয়নের প্রশংসা করছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সব জায়গায় তিনি তার বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি সব সময় দেশের মানুষের কথাটায় ভাবেন কারণ তার কোনো চাওয়া পাওয়া নেই। তিনি সব সময় জনগণের কল্যাণে কাজ করেন, জনগণের চাওয়া পাওয়ার জন্য কাজ করেন, উন্নয়নের রাজনীতি করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করাই হচ্ছে শেখ হাসিনার মূল উদ্দেশ্য। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশকে সুইজারল্যান্ড বানাবে, সেই স্বপ্নকে লক্ষ্য রেখে বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা একের পর এক কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ আগে ছিল রাজধানী কেন্দ্রিক উন্নয়ন, আজকে সেই উন্নয়নের কাজ রাজধানী সহ সারা দেশের মফস্বল পর্যন্ত ছড়িয়ে গিয়েছে। আজকে দেশের প্রত্যেকটি সেক্টরে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বহমান আছে।
বিএনপি জামায়াত যখন ক্ষমতায় ছিল তারা কিন্তু হাওয়া ভবনের মত সৃষ্টি করে তারা যেভাবে লুটতরাজ চালিয়ে গিয়েছিল তাতে দেশ অনেক পিছিয়ে পরেছিল। পরে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সেই পিছিয়ে পরা দেশটাকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশ আবার পিছিয়ে যায়। এরপরে আবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর সেই উন্নয়নের ধারাকে আবার অব্যাহত রেখেছে সরকার।
যেখানেই তাকাবেন সেখানেই শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন নজরে পড়বে। আজকে দেখেন দেশে রেমিট্যান্সের একটার পর একটা রেকর্ড ব্রেক হচ্ছে তাও কিন্তু সরকারের কারিগরি ভূমিকার ফলেই সাধন হয়েছে। আজকে মাথা পিছু আয় বেড়েছে, রিজার্ভ বেড়েছে, রেমিট্যান্স বেড়েছে। বিশ্ব ব্যাংক যে গ্রোথ আশা করে তার থেকে কিন্তু আমরা প্রতিবারই এগিয়ে থাকি। আজকে আমাদের খাদ্যে ঘাটতি নেই, সবজি উৎপাদনে আমরা চতুর্থ স্থানে আছি, মৎস্য চাষে দ্বিতীয় স্থানে আছি। শস্য খাতে, মেডিসিন খাতেও আমরা অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছি। আজ আমাদের দেশের তৈরি মেডিসিন বিশ্বের অনেক দেশেই রপ্তানি হচ্ছে। এই বাংলাদেশকে নিয়ে এখন অনেক উন্নত দেশগুলো বলছে, এমন দিন আসবে যখন হয়তো ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোকে পিছনে ফেলবে। এসবই সম্ভব হচ্ছে এবং একমাত্র আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *